শিরোনামঃ

লোহাগড়ায় চাঁদার টাকা না দেওয়ায় মোটরসাইকেল চালককে মারপিটের অভিযোগ-দেশবাংলা খবর২৪

লোহাগড়ায় চাঁদার টাকা না দেওয়ায় মোটরসাইকেল চালককে মারপিটের অভিযোগ-দেশবাংলা খবর২৪ 


মো:আজিজুর বিশ্বাস,স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল। নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় চাঁদার টাকা না দেওয়ায় রাশেদুল শেখ নামে এক মোটরসাইকেল ড্রাইভার কে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে । মোটরসাইকেল ড্রাইভার রাশেদুল ইসলামের বাড়ি লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের রামেশ্বরপুর গ্রামে,তার পিতার নাম মৃত আয়েন উদ্দিন শেখ। মোটরসাইকেল ড্রাইভার মো: রাশেদুল শেখ, এই প্রতিনিধি কে বলেন, আমি ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালিয়ে আমার সংসার চালাই , ১/৩/২০২১/ তারিখ: সোমবার বিকাল ৩ টার সময় লোহাগড়ার কালনা ঘাট থেকে নড়াইলে ফেরার উদ্দেশ্যে রওনা হলে পথে খুলনা কালনার এক্সপ্রেস কাউন্টারের সামনে বটতলা আসলে একজন লোক আমাকে বলেন নড়াইলে নিয়ে যেতে,তখন আমি ওই লোক কে আমার মোটরসাইকেলে তুলি, এসময় ১ নং মো: মিলন শেখ,(৩৬) পিং মো: রঙ্গু শেখ,সাং চরকরফা থানা লোহাগড়া,জেলা  নড়াইল  আমার গাড়ির সামনে এসে দাঁড়িয়ে আমাকে ৫ শত টাকা চাঁদা দিতে বলে এবং বলে এখানে গাড়ি চালাতে হলে চাঁদা দিতে হবে, তখন আমি তাকে বলি ভাই আমি গরিব মানুষ মোটরসাইকেল ভাড়া চালিয়ে খাই, আর সারাদিন ১শত টাকা ভাড়া খেটেছি ভাই। ৫ শত টাকা আমি কোথায় পাবো।তখন এই কথা শুনে মিলন সহ অজ্ঞাত আরও  ৬/৭ জন এসে টাকা চাই, ও মা,বাবা, তুলে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করেন। 

মোটরসাইকেল ড্রাইভার রাশেদ আরো বলেন আমি তাদের গালি গালাজ করিতে নিষেধ করিলে  মিলন ও তার সাথে থাকা লোকজন আমার মাথায় পিঠে মুখে কিল-ঘুষি মারতে থাকে এবং আমার প্যান্টের পকেটে থাকা বিভাগ নেওয়ার জন্য টানা হেঁচড়া করে।  তখন আমি এক পর্যায়ে যাত্রী কে ছেড়ে আমার গাড়ি নিয়ে পালিয়ে লক্ষীপাশা চলে আসি।রাশেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের আরও বলেন লোহাগড়ায় কালনা ঘাটে ওই মিলনের নেতৃত্বে সমস্ত গাড়ি থেকে চঁাদার টাকা তোলা হয়।কেউ প্রতিবাদ করতে গেলে তাকে খেতে হয় মারধর।আমি লোহাগড়া থানায় অভিযোগ করেছি আমি এর সুষ্ঠু একটা বিচার চাই,এবং আমার মতো আর কোনো ড্রাইভার যেন চঁাদার টাকা না দিতে পেরে মার না খায়। এ বিষয়ে মিলনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায় নাই। 

No comments

-->