নতুন প্রকাশিতঃ

মহাদেবপুরের ১০ শ্রেনীর ছাএ শুভদেব কুমার,সরস্বতী প্রতিমা তৈরিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে।

মহাদেবপুরের ১০ শ্রেনীর ছাএ শুভদেব কুমার,সরস্বতী প্রতিমা তৈরিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে।

মহাদেবপুর প্রতিনিধিঃ

উৎসব  মুখর-পরিবেশে মহাদেবপুরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব সরস্বর্তী পুজা। আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে মহাদেবপুর প্রতিটি মন্ডপে মন্ডপে পুর্জা আরচনার মধ্যদিয়ে এ উৎসব পালিত হচ্ছে।   মহাদেবপুর প্রতিটি মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়িতে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সরস্বর্তি পুজা উদযাপন হচ্ছে।  এ পূজা উৎসবকে ঘিরে ভক্তরা নিজ নিজ এলাকায় উদযাপন করতে  আনন্দে মেতে উঠে। পূজা চলাকালীন সময়ে ঢাকের শব্দ ও উলু ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে প্রতিটি পূজা মন্ডপ। পুজা আর্চনা শেষে ভক্তদের মধ্য প্রসাদ বিতরণ করা হয়।সারাদেশের মতো মহাদেবপুর অনুষ্ঠিত হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা। সকাল থেকে শুরু করে বিকাল পর্যন্ত মহাদেবপুর  মন্দিরে ও এই পূজা অনুষ্ঠিত হয়।দেবীর এই পূজাকে কেন্দ্র করে ভক্তাদের ঢল নামে প্রতিটি মন্ডপ সহ প্রতিটি জায়গায়। আনন্দে মেতে উঠে সকলেই। পূজা চলাকালীন সময়ে ঢাকের শব্দ ও উলু ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে প্রতিটি পূজা মন্ডপগুলো। দুপুরের দিকে ভক্তরা বিদ্যা এবং জ্ঞান লাভের আশায় সরস্বতী মায়ের চরণে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করেন। একযোগে এই সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতি বছর মাঘ মাসের পঞ্চমী তিথিতে এ পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। পূজায় অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করতে কল্যাণময়ী দেবীর চরণে সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমললোচনে বিশ্বরূপে বিশালক্ষী বিদ্যংদেহী নমোসতুছত্তে এই মন্ত্র উচ্চারণ করে বিদ্যা ও জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রণতি জানান ভক্তরা।পূজাকে কেন্দ্র করে হিন্দু সম্প্রদায় পূজা অর্চনাসহ নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। আগামীকাল ১৭ ফেব্রুয়ারি মহাদেবপুর অত্রাই নদীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হবে।

No comments

-->