শিরোনামঃ

সুনামগঞ্জ জেলার করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ

সুনামগঞ্জ জেলার  করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সুনামগঞ্জ জেলা সদরসহ ১১টি উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্রে করোনা ভ্যাকসিন প্রদানের সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। 

আজ শনিবার সকাল  ১১টায় আড়াইশ সুনামগঞ্জ জেলা সদরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতলের নুতন ভবণের নীচ তলার বাম পাশের একটি কক্ষে শয্যা,চেয়ার টেবিলসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ স্থাপন করা হয়েছে। সিভিল সার্জন মোঃ শামছ উদ্দিন আজ সকালে হাসপাতাল পরিদর্শন করে টিকাদান বুথ গুলো ঘুরে দেখেন। সদর হাসপাতালের ৮টি বুথে ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোতে তিন করে করোনা বুথ স্থাপন করা হয়েছে। জেলার ১১ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩৩ টি বুথ ও সদর হাসপাতালের ১০ টি বুথে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে। প্রতিটি বুথে একজন টিকাদান কর্মী দায়িত্বে একজন চিকিৎসক একজন সিনিয়র স্টাফ নার্স ও চারজন স্বেচ্ছাসেবক টিকা প্রদানকালীন সময়ে দায়িত্ব পালন করবেন। 

এছাড়া প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে ২ জন টিকাদান কর্মী এবং চারজন করে স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ করা হয়েছে। জরুরী কোন সমস্যা দেখা দিলে কুইক রেসপন্স টিম সব রকমের দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতিটি বুথে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার, অক্সিমিটার, পাল্স্ মিটার,ইনজেকশন কার্সন,বিপি সহ প্রয়োজনীয় মেডিকেল উপকরণ থাকবে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ টিকা প্রদানের জন্য ডাক্তার, নার্স, আয়া, ব্রাদারসহ ফ্রন্ট লাইনাদের টিকা প্রদানের তালিকা প্রস্তুত করেছেন। এছাড়াও টিকা গ্রহণকারীদের সহযোগিতার জন্য এএফআই ম্যানেজমেন্ট সেন্টার স্থাপন করেছেন। সুরক্ষা অ্যাপস দিয়ে টিকা প্রদানকারীদের জন্য স্বাস্থ্য বিভাগের আইটি তৈরি করা হয়েছে। তারা সুরক্ষা অ্যাপসে রেজিস্ট্রেশনকারীদের সেবা প্রদান করবেন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন,জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক(আরএমও) ডা. রফিকুল ইাসলাম ,মেডিকেল অফিসার ডা. সৈকত দাসসহ প্রমুখ। 

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন মোঃ শামছ উদ্দিন বলেন, আগামীকাল ৭ ফেব্রুয়ারী স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাতীয় ভাবে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনের পরপরই সুনামগঞ্জ জেলায় টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে। টিকাদান কর্মী ও স্বেচ্ছা সেবকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে চারজন স্বেচ্ছাসেবক ও দুইজন টিকাদান কর্মী নিয়োজিত থাকবেন। 

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। প্রত্যেকটি টিকাদান কেন্দ্রে তাৎক্ষনিক সমস্যা মোকাবেলার জন্য একটি মেডিকেল টিম দায়িত্ব পালন করবেন। যেকোন সমস্যা হলে তারা সেবা প্রদান করবেন। প্রতিটি কেন্দ্রে স্বাস্থ্যকিট বক্স প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র সহ থাকবে। তিনি সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে বলেন কোভিড ১৯ এর টিকা নিতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। নির্ভয়ে সুরক্ষা অ্যাপসে রেজিস্ট্রেশন করে নির্ধারিত টিকাদান কেন্দ্রে আসবেন।

No comments

-->