শিরোনামঃ

দিনাজপুর কাহারোলে আলুর বাম্পার ফলন বাজার মুল্য নাই বিপাকে কৃষক।।

দিনাজপুর কাহারোলে আলুর বাম্পার ফলন বাজার মুল্য নাই বিপাকে কৃষক।।

রেজওয়ান আলী দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি।।দিনাজপুর কাহারোলে আলুর বাম্পার ফলন বাজার মুল্য নাই বিপাকে কৃষক। জানা যায় যে,জেলার কাহারোল ৬টি ইউনিয়নে আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে আলুর মুল্য কম।উৎপাদন খরচ উঠছে না আলু চাষিদের। গতকাল কাহারোল উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে,আলু চাষিরা আলু তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। 

উপজেলার কাহারোলে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর অফিস সূত্রে জানা গেছে,চলতি মৌসুমে উপজেলায় ২ হাজার ২’শ ৩৯ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। গতবছর আলুর দাম বেশী পাওয়ায় কৃষকেরা লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ২ হাজার ৩’শ ৭৮ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করেছে।

কৃষি বিভাগের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জুলফিকার আলী জানান,৩টি প্লটে আলুর ক্রোপ কাটিং করা হয়েছে। গড়ে এসেছে প্রতি হেক্টরে ২৭ মেট্রিক টন আলু। চলতি বছরে উপজেলায় ৬২ হাজার ৬’শ ৯২ মেট্রিক টন আলু উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগ। কাহারোল হাটে আড়তে প্রতিমণ দেশী বগুড়া আলু বিক্রি হয়েছে ৩৬০ থেকে ৩৮০ টাকা, অপরদিকে কাটিলাল,স্টাডিসসহ অন্যান্য আলু বিক্রি হয়েছে ৩২০ থেকে ৩৩০ টাকা মণ।

ডাবর গ্রামের আলু চাষী মানিক জানান,তিনি এবার ৩ একর আলু আবাদ করেছেন,আলু উৎপাদন হয়েছে ভালোই কিন্তু বাজারে দাম কম থাকায় লাভের মুখ দেখা যাচ্ছে না। অন্যদিকে পাহাড়পুর গ্রামের আলু চাষী অনিল কুমার জানান,বর্তমানে বাজারে দাম কম থাকায় আলু আবাদ করে লোকসান গুনতে হয়।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কৃষি কর্মকর্তা আবু জাফর মোঃ সাদেক বলেন,এবার উপজেলায় আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমানে বাজারে আলুর দাম একটু কম হলেও কিছুদিন আলু রাখলে দাম বেশী পাওয়া যাবে। কৃষি বিভাগ কৃষকদের জমি থেকে আলু উঠিয়ে বাড়ীতে রাখার পরামর্শ প্রদান করেন।

No comments

-->