শিরোনামঃ

বাগমারায় দুর্বৃত্তদের আগুনে স মিল পুড়ে ছাই

বাগমারায় দুর্বৃত্তদের আগুনে স মিল পুড়ে ছাই 

রাজশাহী প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাগমারায় দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে গেছে একটি কাঠের স মিল কারখানা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকা ভুক্তভোগী মিল মালিকের নাম মোহাম্মদ শমসের আলী তিনি নরদাশ ইউনিয়নের মাদিলা গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে ।ঘটনাস্থল সরেজমিনে তদন্তে জানা যায় , গত বৃহস্পতিবার রাতে মিল মালিক শমসের আলী প্রতিদিনের মতো ব্যবসায়ীক কাজকর্ম সেরে রাত নয়টার দিকে বাড়ি যান ।এদিকে রাত্রি আনুমানিক বারোটার দিকে কে বা কাহারা তার  মিল কারখানায় আগুন ধরিয়ে দেয়। 

আগুনের লেলিহান শিখা দেখে এবং পটপট শব্দ শুনে নরদাশ গ্রামের এক প্রতিবেশী মোহাম্মদ মানিকের ছেলে নাজমুল হোসেন মিল মালিক কে মোবাইল ফোনে এবং আশেপাশের লোকজনকে খবর দেয় ।ততক্ষণ ডাক চিৎকারে  আশেপাশের আরো অনেক লোকই এগিয়ে আসে । এভাবে প্রতিবেশীরাই পাশের এক পুকুর থেকে পানি নিয়ে প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টার ফলে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা এ বিষয়ে কথা হলে পানিয়া- নরদাশ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মোঃ আবদুস সালাম বলেন , কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। 

আমি খবর পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নেভানোর কাজে সহায়তা করি আমরা গ্রামবাসীর প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ।গভীররাত হবার কারণে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া সম্ভব হয়নি। তিনি আরো বলেন এই ব্যবসা ছাড়া এই ব্যক্তির আর কোন কিছু নাই তিনি একেবারেই পথে বসে গেছেন ।

আমি মাননীয় এমপি মহোদয়ের সদয় দৃষ্টি কামনা করছি। অগ্নিকাণ্ডের সংবাদ শুনে হাটগাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ এবং স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করে সমবেদনা জানিয়েছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মতিউর রহমান বলেন আমি ঘটনাটি শুনেছি কিন্তু কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে সেখানে যেতে পারেনি ।তবে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি যাতে করে ভুক্তভোগী পরিবার সরকারিভাবে ক্ষতিপূরণ পায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা করা হয়নি।

No comments

-->