শিরোনামঃ

মিঠাপুকুরে সুদের টাকায় বিভিন্ন অপকর্ম, এবং সুদ বাণিজ্য

মিঠাপুকুরে সুদের টাকায় বিভিন্ন অপকর্ম, এবং সুদ বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক

মিঠাপুকুর উপজেলার,২,৩,৭নং ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী গ্রামের ওয়ার্ড--কোনাপাড়া,লোহনি কোনাপাড়া, মোমিনপুর-অভিরামপুর  -অভিরামনুরপুর সহ আশেপাশের বেশ কিছু গ্রামে চলছে চড়া সুদ বাণিজ্য। এবং নেশা জাতীয় জিনিস ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।যা-সেখানকার পরিবেশ পরিস্থিতি বর্তমান কিশোর, যুবকদের মানুষিকতার ব্যাপকভাবে নেগেটিভ পরিবর্তন ঘটাচ্ছে। একদিকে বৃদ্ধি পাচ্ছে, সন্ত্রাসী, চুরি,খুন-খারাপি।অন্যদিকে চলছে সুদের টাকার ছড়াছড়ি।যার,হার এক হাজার প্রতি-১৮০-২০০-২২০টাকা মাসে।এইসব সুদের টাকা নিয়ে অনেক যুবক বিভিন্ন নেশায় ডুবে যাচ্ছে।যেমন,মদ-গাঁজা, ইয়াবা-ফেসডিল‌ এবং জুয়ায় আকৃষ্ট হচ্ছে।রাত হলেই  বিভিন্ন জায়গায় চলে মাদকের আসর। এতে,করে অনেকেই মাদকের সিন্ডিকেট বসিয়েছে। অনেক যুবক সুদের টাকা দিতে না পারায় বিভিন্ন রকম অপকর্মে লিপ্ত হচ্ছে। এবং অনেক অসহায় ব্যক্তি সর্বোশ্ব হারাচ্ছে। এমনকি সুদের টাকা দিতে না পারায় তাদের শেষ সম্বল গরুটিও রেহাই পায় না। আর সুদের টাকা মাদকদ্রব্য সেবনে শেষ করে,মাস শেষে পরিবারে অশান্তি তো প্রতিদিন লেগেই থাকে। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অনেক লোক সুদের টাকা দিতে না পারায় তাদের,হাটে-বাজারে হেনস্থার শিকার হতে হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু লোকের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের কথা-যাদের কিছুই ছিল না।তারাই আজ ৯/১০লক্ষ টাকার মালিক।সুদ তাদেরকে এমন ভাবে ঝেকে বসিয়েছে,যে ভিক্ষা করে সেও সুদের টাকা দেয়।আর এই সব টাকা নিচ্ছে, বেশির ভাগ মাদকাসক্ত ব্যক্তি এবং অসহায় ব্যক্তি। এমনকি ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে ওচলছে সুদ বাণিজ্য।আর,এইসব ব্যক্তিদের কাছে হার মানছে অসহায় ব্যক্তিরা। তারা, সুদের টাকা দিতে না পারায় পরিবারে অন্যায় অত্যাচার বেড়েই চলছে। এমনকি এলাকায় এখন মাদকের রমরমা ব্যবসা। এলাকাবাসী জানায়, প্রশাসন বিভিন্ন সময় অভিযান পরিচালনা করলেও থেমে নেই তাদের মাদক দ্রব্য ওসুদ বাণিজ্য।তারা বের হয়ে আবার সেই পেশায় চলে যায়,যা-আগের থেকে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। 

সমাজের বিভিন্ন সচেতন মানুষের সঙ্গে কথা বলে এসবের সত্যতার প্রমাণ পাওয়া যায়। এলাকাবাসীর দাবি, তাদের সন্তানদের এবং অসহায় মানুষদের রক্ষা করতে এসব সুদ ও মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া উচিত। এজন্য তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

No comments

-->