নতুন প্রকাশিতঃ

অগ্নিকান্ডে এক হতদরিদ্র কৃষকের ঘর পুড়ে ছাই

অগ্নিকান্ডে এক হতদরিদ্র কৃষকের ঘর পুড়ে ছাই



মোঃ রফিকুল ইসলাম (শুভ),,মনোহরদী,নরসিংদী 



আজ ২২ এ ফেব্রুয়ারী  সন্ধ্যা ৬ টায়( আনুমানিক) কিশোরগঞ্জ জেলা,  কটিয়াদি উপজেলা, চরপুক্ষিয়া গ্রামের বাসিন্দা কৃষক আবু বক্করের(৬৮) বাড়িতে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। 

ঘটনাস্তরে গিয়ে স্হায়ী জনগণের কাছ থেকে জানা যায়, আবু বক্কর সন্ধ্যায় গরুর গোহাল ঘরে মাশা তাড়ানোর জন্য ধোঁয়া দিতে যাবার সময় আগুনের উল্কা শুলার ফেত্তার ( শুলার সাথে যে অতিরিক্ত হালকা পাঠ) উপরে গিয়ে পড়ে। এই আগুনের উল্কা পড়াতে সাথে সাথে আগুন ধরে যায়। অতপর, শুলার পাশেই ছিল ঘর। সে সুবাদে ঘড়ের ও আগুনটি ছড়িয়ে পড়তে আর দেরি হয় না।

গোহাল ঘড়ে ছিল ছাগল ও গরু। আবু বক্কর গরুটিকে বাঁচাতে পারে। কিন্তু ছাগলটি কে শেষ রক্ষা করতে পারে নাই। গরু বের করার সময় আবু বক্করের হাত পুড়ে যায়। ঘড়ে আগুন লাগার সাথে সাথে এলাকা বাসী দেখতে পাই। কিন্তু এলাকাবাসী যাওয়ার আগেই ঘড়টি পুড়ে যায়। কারণ জনবহুল বসতি থেকে আবু বক্কর মিয়ার বাড়িটি অনেক দূরে ছিল। আর অপর দিকে ছিল আড়িয়াল খাঁ নদীর পর চরগোহালবাড়িয়া গ্রাম। আর চরগোহালবাড়ীয়ার  এলাকা বাসী যাওয়ার কোন রাস্তা ছিল না। যদিও চরগোহালবাড়িয়া থেকে বুরকা দিয়ে পারাপার করতে হয়। 

সে সময় একদল যুবক খেলা শেষ করে নদীতে আসছিল হাত-মুখ ধোয়ার জন্য। তখন তারা সেখান থেকে আগুন দেখে ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর্বেই ঘড়টি পুড়ে ছারখার হয়ে যায়।

এলাকার বাসিন্দা থেকে জানা যায়,আবু বক্কর এর স্হায়ী বাড়ি চরগোহালবাড়িয়া, কৃষ্ণপুর ইউপি, মনোহরদী উপজেলা, নরসিংদী জেলার বাসিন্দা। বেশ কয়েক বছর আগে তিনি নদীর ওপার বাড়ি তৈরি করে একা বসবাস করতে থাকেন। ওনার বাড়ির আশপাশে আর কোন বসবাস বসতবাড়ি নেই।

No comments

-->