নতুন প্রকাশিতঃ

কুড়িগ্রামে ফ্রেন্ডশিপের ‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন

কুড়িগ্রামে ফ্রেন্ডশিপের ‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন

রুহুল আমিন রুকু, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

বিশ্বখ্যাত ক্রিকেটার বাংলাদেশের সাকিব আল হাসানকে নিয়ে ‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করলো উন্নয়ন সহযোগি সংস্থা ‘ফ্রেন্ডশিপ’। সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মাঝে আত্মমর্যাদা ও আশা জাগিয়ে সমান সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা, এ ক্যাম্পেইনের উদ্দেশ্য। কোভিড-১৯ বা করোনা মাহামারী, সাইক্লোন, আম্পান, উপকূলীয় জলোচ্ছাস এবং কয়েক মাসের বন্যায় বিপর্যস্ত প্রান্তিক মানুষের জীবন। জলবায়ু পরিবর্তন এবং অন্যান্য ঝুঁকির মুখে থাকা বাংলাদেশের প্রান্তিক অঞ্চলে বসবাসকারী এসব মানুষকে স্বাবলম্বী করতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে ফ্রেন্ডশিপ।

‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান বলেন, ‘সুবিধা বঞ্চিত প্রান্তিক গোষ্ঠি এবং তাদের ভাগ্যোন্নয়ন নিয়ে কাজ করছে ফ্রেন্ডশিপ। ফ্রেন্ডশিপের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা বৈশ্বিক মহামারী করনাকে ভয় না করে দুর্দিনে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। এমন বীরদের সাথে থাকতে পেরে আমি গর্বিত’। জলবায়ু এবং অন্যান্য ঝুঁকির মুখে থাকা বাংলাদেশের প্রান্তিক অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষকে স্বাবলম্বী করতে বিশেষ উদ্যোগ নেয়ায় ফ্রেন্ডশিপকে ধন্যবাদও দেন বাংলাদেশের এই স্বনামধন্য ক্রিকেটার।

ফ্রেন্ডশিপের প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী পরিচালক রুনা খান বলেন, ‘কঠিন দিনে সামাজিক কাজ করতে গিয়ে বেসরকারী সংস্থার গুরুত্ব বেশি অনুভব করি। ফ্রেন্ডশিপের মূল লক্ষ্য হচ্ছে- জীবন বাঁচানো, জলবায়ু অভিযোজন, দারিদ্র বিমোচন এবং প্রান্তিক মানুষের ক্ষমতায়ন। আমরা সমান সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতের মাধ্যমে মানুষকে আত্মমর্যাদা ও আশা দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।’

‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে করোনা মহামারী এবং গেল কয়েক বছর ধরে সুবিধা বঞ্চিত প্রান্তিক মানুষের বর্ণনায় উঠে আসে ফ্রেন্ডশিপ বীরদের কর্মকান্ড। তারা জানান, প্রান্তিক মানুষের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিতে করোনাকালে হাসপাতালে অবস্থান করে ক্লান্তিহীন মেডিকেল সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ফ্রেন্ডশিপের স্বাস্থ্য বীরেরা। তারা নিজ বাড়ী ও পরিবারের দূরে থাকছেন বছরের পর বছর। তাদের সাথে ভাসমান হাসপাতালে জীবন পরিবর্তনকারী বিভিন্ন জটিল অস্ত্রপাচারে অংশ নিচ্ছেন বিদেশি ডাক্তার ও নার্সরা। সুস্বাস্থ্যের পাশাপাশি প্রান্তিক জনপদে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে, সুশাসন এবং সমাজে শান্তি-শৃংখলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছেন ফ্রেন্ডশিপের প্যারালিগ্যালবৃন্দ। ফলে যমুনা-ব্রহ্মপুত্র চর, দক্ষিণের উপকূলীয় এলাকাসহ বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলের সমাজে এসেছে সুশৃংখলা, সুশাসন ও শান্তি। প্রান্তিক অঞ্চলে শিক্ষার হার বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে ফ্রেন্ডশিপের স্কুলগুলো। বিভিন্ন দুর্যোগ বা প্রতিকুলতা মোকাবেলায় ফ্রেন্ডশিপ স্কুলের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের অবদান দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে সমাজের কাছে। জলবায়ু দুর্যোগ মোকাবেলায় ফ্রেন্ডশিপের প্রশিক্ষণে বেশ দক্ষ হয়ে উঠেছেন প্রান্তিক অঞ্চলের বাসিন্দারা।

ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে যোগ দেন ‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ব্র্যান্ড ও সৃজনশীল পরামর্শক শুভঙ্কর রায় ফ্রেন্ডশিপের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা- সিওও কর্ণেল (অবঃ) ইফতেখার উদ্দিন মাহমুদ, প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মোঃ শামীম রেজা, কমিউনিকেশন প্রধান তানজিনা শারমিন এবং বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যমের প্রতিনিধিবৃন্দ।‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইনকে সফলভাবে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার তাগিদ দেন অতিথিরা।

উল্লেখ্য ২০১৯ সালের নভেম্বরে, বাংলাদেশের গর্ব বিশ্বখ্যাত  সেরা ক্রিকেটার এবং অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ফ্রেন্ডশিপ যোদ্ধাদের সাথে যুক্ত হন। গণমানুষের ক্ষমতায়ন ও সংহতিকে এগিয়ে নিতে সাকিবকে সঙ্গে নিয়ে শুরু করা হয় ‘ফ্রেন্ডস এন্ড হিরো’ ক্যাম্পেইন। মাঠ পর্যায়ে অনেক ‘ফ্রেন্ডশিপ’ বীরদের সাথে বন্ধুত্ব করেন সাকিব  এরপর সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশেও শুরু হয় করোনার প্রাদুর্ভাব। এমন মাহামারীকালে চলতি বছরের মে মাসে আঘাত হানে অতি প্রবল ঘূর্নিঝড় আম্পান। ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হন দক্ষিণের উপকূলীয় এলাকার প্রায় ২৫ লাখ বাসিন্দা। আম্পান প্রভাবিত জলোচ্ছাস ও লবনাক্ত পানিতে ক্ষতির মুখে পড়েন আরও ৮ লাখ মানুষ। বিভিন্ন দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ এসব মানুষের খাদ্য ও ত্রাণ সহযোগিতায় বন্ধুত্বের অবদান রাখেন সাকিব আল হাসান।

বাংলাদেশের যেখানে জীবন-জীবিকা হুমকির মুখে, সে সব প্রান্তিক এলাকার জনগোষ্ঠিকে স্বাবলম্বী করণ এবং স্থানীয় জনগনের ক্ষমতায়ন নিয়ে কাজ করছে উন্নয়ন সহযোগি সংস্থা ‘ফ্রেন্ডশিপ’। ২০০২ সালে যাত্রা শুরু পর থেকে এ পর্যন্ত প্রতিবছর ৬০ লাখ মানুষকে সহযোগিতা করে আসছে সংস্থাটি। দুর্গম প্রত্যন্ত এলাকার পাশাপাশি যেখানকার বাসিন্দারা জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার এমন জনগোষ্ঠিকে স্বাবলম্বী করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে 'ফ্রেন্ডশিপ'।এক্ষেত্রে দেশে এবং দেশের বাইরে সফলতার মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে "ফ্রেন্ডশিপ"।

No comments

-->