শিরোনামঃ

ঠাকুরগাঁও সুগারমিলে চালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, বাবা-ছেলে আটক।

ঠাকুরগাঁও সুগারমিলে চালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, বাবা-ছেলে আটক।

মোঃসোহেল রানা, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে আখ সরকরাহকে কেন্দ্র করে পক্ষ বিপক্ষে মারপিটের ঘটনায় সুরেশ চন্দ্র রায় (৫৫) নামে ট্রলির চালকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত বাবা-ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ।     

পুলিশ জানায়, গতকাল সোমবার রাত ১১টায়  দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ থেকে ডিজেল চালিত পাওয়ার ট্রলিতে ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে আখ নিয়ে আসেন চালক সুরেশ চন্দ্র রায়। এসময় আখ সরবরাহকে কেন্দ্র করে সুরেশের সাথে আরেকটি ট্রলির চালক আব্দুর রহিমের বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে রহিম ও তার ছেলে সোহাগ মিলে সুরেশকে আখ দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা সুরেশকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ভর্তির পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতেই সুরেশ চন্দ্রের মৃত্যু হয় বলে জানান পুলিশ । 

আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ রকিবুল আলম জানায়, সুরেশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে বিষয়টি আরো পরিস্কার হওয়া যাবে।নিহত সুরেশ চন্দ্র রায় (৫৫) দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদাহাট গ্রামের সবিন্দ্র নাথ রায়ের ছেলে।আর আটকরা হলেন দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদাহাট গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে আব্দুর রহিম (৫৫) ও তার ছেলে সোহাগ আলী (১৯)।

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম জানান, ময়না তদন্তের জন্য নিহতের লাশ ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

তবে এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সুগারমিল কর্তৃপক্ষ কোন কথা বলতে রাজি না হলেও তাদের দাবি সামান্য ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছিল। সুরেশ চন্দ্রে মৃত্যু হয়েছে হার্ট অ্যাটাকে।

No comments

-->