শিরোনামঃ

ঈদগড়ের 13 বছরের সন্তান উম্মে জাহান লাখি বাঁচতে চাই মোঃ ইউসুফ রুবেল চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান

 ঈদগড়ের 13 বছরের সন্তান উম্মে জাহান লাখি বাঁচতে চাই মোঃ ইউসুফ রুবেল চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান


ঈদগড়ের ১৩ বছরের সন্তান উম্মে জাহান লাখি বাচঁতে চাই।

আব্দুর রহমান 

রামু উপজেলার ঈদগড়ের ২ নং ওয়ার্ড পূর্ব হাসনাকাটার  গ্রামের মোঃ হোসেন ও ছমুদা খাতুনের ফুটফুটে মেয়ে সন্তান উম্মে জাহান লাখি বাঁচার আকুতি জানিয়েছে বিত্তাবানদের প্রতি।গরিব পরিবারে জন্ম তার অসহায বাবা মোঃ হোসেন তার দিন মজুরি কাজ করে সাত সদস্যের সংসার চালায়, নেই টাকা পয়সা, নেই জায়গাজমি,এই ৭ সদস্য পরিবারে চার মেয়ে আর এক ছেলে সন্তানের জনক জননী বহু কষ্টের বিনিময়ে তাদের তিন বেলা খাবার জোগাড় করে। নুন আন্তে পান্তা ফুরাই এমন পরিবারে হঠাৎ এমন ধক্কা যেন পরিবারের মাথায় পাহাড় ভেঙ্গে পড়েছে বিপাকে পিতা,মাথা। এখানে সবার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারছেনা ঠিক মত, এমন সময় মরার উপর খাড়া, গত কয়েক মাস ধরে উম্মে জাহান লাখি(১৩) মেয়েটির শরীরে বিভিন্ন রোগে বাসা বেধেছে,হার্টের, রক্তশূন্যতায়ও বিভিন্ন রোগে বাসা বেধেছে, এমন সংকটময় পরিবারের নেই কোন সম্পদ নেই টাকা পয়সা, অনেক সময় পাঁচ সন্তান নিয়ে মাঝে মধ্যে না খেয়েও থাকতে হয় অসহায় পরিবারটির তবুও জন্ম নেওয়া নিজের মেয়ে মানেনা মা,বাবার মন, অনেক কষ্টের বিনিময়ে ধার কর্জ করে চল্লিশ / পঞ্চাশ হ্জার টাকার মত খরচ করেছে অসহায় পরিবারটি। সম্পূর্ন চিকিৎসা করতে তাদের প্রয়োজন ১লক্ষের উপর। এমন দুঃসময়ে  স্থানীয় বিত্তবানরা এগিয়ে না আসলে মৃত্যু ছাড়া উপায় নাই এমনটাই জানিয়েছ মা,বাবা।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের এমন কোন অসহায়, গৃহহীন নাই সে দেশে এমন এক অসহায় পরিবারের সরকারের সহযোগিতাও  পাওয়ার আস্তা রাখছেন। তাদের পিতা মাতা বলেন এমন সময়ে আমার আর কোন সম্বল নাই,তাই সমাজের বিত্তাবান যারা আছে, ত্দের কে তার পরিবারের পাশাে দাড়ানোর অনুরোধ জানাচ্ছেন, পাশাপাশা স্থানীয় প্রতিনিধি,ও সরকারের উর্ধতন কর্মকর্তার প্রতিও অনুরোধ জানান, যাতে সবার সহযোগিতা পেলে মেয়েটি সুস্ত হয়ে পড়ালেখা করে দেশের জন্য কিছু করতে পারবে,এমন টাই আশা পরিরারটির,

শেষে তার মেযের সুস্ততার জন্য দোয়া এবং সবাইকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন অসহায় পিতা মাতা মোঃ হোসেন ও ছমুদা খাতুন।

No comments

-->