শিরোনামঃ

নারীর সুরক্ষায় নতুন হটলাইন

 নারীর সুরক্ষায় নতুন হটলাইন


অনলাইন ডেস্ক:

‘এখন আমার মেয়ে, বোন বা কোনো গার্মেন্টস কর্মী যেকোনো সময় যদি নিজেকে অনিরাপদ মনে করেন, তবে তিনি এই নাম্বারে ফোন দিয়ে আমাদের জানাবেন। কোনো নারী বা আমার সন্তান রাস্তাঘাটে চলার সময় অনিরাপদ বোধ করলে তার কথা শোনার জন্য আমাদের এই প্রচেষ্টা।’


নারী নির্যাতন রোধে তাৎক্ষণিক সাড়া (কুইক রেসপন্স) দিতে নতুন হটলাইন চালু করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। নম্বরটি হলো ০১৩২০-০৪২০৫৫।


এখন থেকে ঢাকা মহানগর এলাকায় অনিরাপদ মনে করা যে কোনো নারী এ নম্বরে কল করতে পারবেন। ডিএমপির রেসপন্স টিম তাৎক্ষণিকভাবে তাদের সাহায্য করবে।


নারী নির্যাতন প্রতিরোধে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রামের আওতায় ২০১২ সালের ১৯ জুন একটি হটলাইন চালু করা হয়েছিল। ১০৯২১ নম্বরটি টোল ফ্রি।


২০১৭ সালের ১ মার্চ নম্বরটি পরিবর্তন করে ১০৯ করা হয়।


তেজগাঁও থানা কমপ্লেক্সে উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনে এ হটলাইন নম্বর উদ্বোধন করেন ডিএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম।


তিনি বলেন, ‘এখন আমার মেয়ে, বোন বা কোনো গার্মেন্টস কর্মী যেকোনো সময় যদি নিজেকে অনিরাপদ মনে করেন, তবে তিনি এই নাম্বারে ফোন দিয়ে আমাদের জানাবেন। কোনো নারী বা আমার সন্তান রাস্তাঘাটে চলার সময় অনিরাপদ বোধ করলে তার কথা শোনার জন্য আমাদের এই প্রচেষ্টা।


‘আমাদের তদন্তের জন্য আলাদা টিম কাজ করে; আসামি ধরার জন্য আলাদা টিম আছে। কিন্তু আমার মেয়ে বা বোনের কোনো খারাপ লাগার জায়গা যেন সে কাউকে জানাতে পারে, তার জন্য এই টিম।’

নারীর সুরক্ষায় নতুন হটলাইন উদ্বোধন।


‘এখন সার্বক্ষণিক একটা গাড়ি থাকবে। পরবর্তীতে আরও গাড়ি যোগ হবে। ৯৯৯-এর মতো যেন আমাদের একটা শক্ত টিম হয় বা রেসপন্স করতে পারি, সেই আশা নিয়ে কাজ করব’, বলেন ডিএমপি কমিশনার।


উইমেন সাপোর্ট ও ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের উপকমিশনার (ডিসি) হামিদা পারভীন জানান, ২০০৯ সালে থেকে শুরু হয় ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার। ২০১১ সালে উইমেন সাপোর্ট ও ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের কার্যক্রম চালু হয়।


‘এখানে ১১টি এনজিও যুক্ত আছে। তিন হাজার ৫০০টি মামলা তদন্ত করা হয়েছে। আর এর মধ্যে তিন হাজার ৩০০টি মামলা সুষ্ঠু নিষ্পত্তি হয়েছে’, বলেন ডিসি হামিদা।


‘দুই হাজার ৫০০ শিশুকে তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। এক হাজার ৫০০ নারী এখান থেকে ভিকটিম সেবা পেয়েছে’, যোগ করেন তিনি।


অনুষ্ঠানে মহিলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সালমা আলী বলেন, ‘এই হটলাইন নাম্বার শুধুমাত্র নারীদের জন্য কাজ করবে। রেইড এবং রেসকিউ যে দুটি আলাদা বিষয়, তা মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।’


তিনি আরও বলেন, “এখন নারী ভিকটিম বলা যাবে না। এটা বললে তাকে আগে থেকেই ছোট করে দেওয়া হয়। ‘ধর্ষণের মুখোমুখি নারী’ এভাবে তাকে সম্বোধন করতে হবে।’’


No comments

-->