নতুন প্রকাশিতঃ

ডিমলায় ১ শতাধিক পাট চাষীদের প্রশিক্ষণ

 ডিমলায় ১ শতাধিক পাট চাষীদের প্রশিক্ষণ 

নুরুজ্জামান সরকার, জেলা প্রতিনিধি (নীলফামারী): "আর্থিক স্বনির্ভরতা অর্জনে, বেশি করি পাট চাষ, পাটের পাতায় তৈরী চা করবে ভাই ক্যান্সার বিনাষ” এবারের এই স্লোগানকে সামনে রেখে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় উপজেলার ১০ টি ইউনিয়নের ১০০জন আদর্শ কৃষক কে নিয়ে এক দিনের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

আজ সোমবার (৪- জানুয়ারি)  আদর্শ পাট চাষীদের মাঝে উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর পাট ও পাটবীজ উৎপাদন প্রকল্পের বাস্তবায়নে পাট অধিদপ্তর, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয় কর্তৃক ডিমলার আয়োজনে চাষীদের সাথে উপজেলা অডিটরিয়াম হলরুমে এক দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।ডোমার-ডিমলা উপজেলার সহকারী পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ মহিবুর রহমান লোহানীর ও উপজেলা পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ দরিবুল্লাহ্ সরকারের সঞ্চলনায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়শ্রী রানী রায় প্রশিক্ষনের উদ্বোধন ঘোষনা করেন। 

উক্ত পশিক্ষনে সল্প খরচে গুনগত মানসম্পন্ন ভালো জাতের পাট বীজ, সার সংগ্রহ করার বিষয়ে ও দেশীয় প্রযুক্তিতে উন্নত মানের পাট চাষ সর্ম্পকে অভিজ্ঞতা বিনিময় করা হয়। প্রশিক্ষনের এক পর্যায়ে নারী-পুরুষ উপস্থিত চাষীদের মধ্যে উন্মুক্ত আলোচনা করা হয়।উক্ত কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী জেলা পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল আউয়াল সরকার, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়, পাট উন্নয়ন অধিদপ্তর রংপুর অঞ্চল সহকারী পরিচালক মোঃ সোলায়মান আলী।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী পাট উন্নয়ন অধিদপ্তর এর মুখ্য পরিদর্শক মোঃ বরজাহান আলী,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক সরকার মিন্টু ,  উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু নিরেন্দ্র নাথ রায়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ আয়শা সিদ্দীকা।কর্মশালায়, নীলফামারী জেলা পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল আউয়াল সরকার প্রশিক্ষনার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জমিতে উন্নত মানের পাটবীজ ব্যবহার করা হলে বিঘা প্রতি ১২ থেকে ১৫ মন সোনালী আঁশের পাট উৎপাদন করা সম্ভব।

কর্মশালার এক পর্যায়ে প্রশিক্ষকরা বলেন, এ জন্য নীতিনির্ধারক ও সরকারের কঠোর আইন প্রয়োগে বাজারে ভালো মানের ও ভেজাল মুক্ত বীজ পাওয়া সম্ভব হবে বলে তারা আশাবাদী।

No comments

-->