শিরোনামঃ

আগামীকাল জলঢাকা পৌর নির্বাচনে কড়া নিরাপত্তায় কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম

আগামীকাল জলঢাকা পৌর নির্বাচনে কড়া নিরাপত্তায় কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম 

ইব্রাহিম সুজন, বিশেষ প্রতিনিধি: কড়া নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে নীলফামারীর জলঢাকা পৌরসভার নির্বাচনের সরঞ্জাম। আজ শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর থেকে জলঢাকা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অফিস থেকে রিটার্নিং অফিসার, প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের মধ্যে নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণ করছেন। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিয়ে সেগুলো কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তৃতীয় ধাপে আগামীকাল শনিবার সকাল ৮টা হতে বিরতিহীন ভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটকেন্দ্রে ভোটারগন ভোট প্রদান করবেন। 

নির্বিঘ্নে ভোট আয়োজনের সব প্রস্তুতিই নেওয়া হয়েছে বলে রির্টানীং অফিসার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম জানিয়েছেন। তিনি সাংবাদিকদের আরও বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কিছু গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে, সেখানে যাতে নেতিবাচক কিছু না ঘটে সেই প্রস্তুতি আমাদের আছে। তিনি জানান, এই পৌরসভায় ইভিএম-এর মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবেনা। তাই ব্যালট পেপারসহ প্রয়োজনীয় নির্বাচনী সামগ্রী কেন্দ্রে আগেই পাঠিয়ে দেয়া হলো। তিনি বলেন,কেন্দ্রের দায়িত্বরত পুলিশ অফিসার ও আনসার সদস্যদের উপস্থিতে ব্যালট পেপার নিয়ে প্রিজাইডিং ও সহকারী প্রিজাইডিং এবং পোলিং অফিসারগণ ভোটকেন্দ্রে চলে যান। তারা দায়িত্বপ্রাপ্ত নিজ নিজ ভোটকেন্দ্রে পৌঁছে যাচ্ছেন। রাতে দায়িত্বরত সবাই ভোটকেন্দ্রেই অবস্থান করবেন। এজন্য ১৫ জন প্রিজাইডিং, ১ শত সহকারী প্রিজাইডিং ও ২ শত পোলিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। 

এ পৌরসভায় ১৫টি কেন্দ্রে ১শত বুথে ব্যালটের মাধ্যমে ৩৩ হাজার ৭ শত ৩৪ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে ১৬ হাজার ৯ শত ২১ জন পুরুষ ও ১৬ হাজার ৭ শত ১৩ জন নারী ভোটার। 

পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান জানান,১৫ টি কেন্দ্রে ভোটারগন যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারে এজন্য তিন স্তরের পুলিশি নিরাপত্তা বলয় সহ দুই প্লাটুন বিজিবি, র্যাবের চারটি টহল টিম, আনসার বাহিনীর সদস্যগন ছাড়াও পুলিশের ইউনিফর্ম পরিহিত সদস্যসহ সাদা পোশাকে বিপুল পরিমান পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। 

জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট সকলকে পেশাদারিত্বের সাখে স্বচ্ছ ও পক্ষপাতহীন ভাবে দায়িত্বপালনের জন্য দিক নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। 

উল্লেখ যে জলঢাকা পৌরসভা নির্বাচনে এবার মেয়র পদে দুই নারী সহ ৬ জন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এরা হলেন নৌকা প্রতীকে উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক মো. মোহসীন, বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি বর্তমান মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী কমেট, জাতীয় পার্টি থেকে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে আফরোজা পারভীন, সচেতন নাগরিক সমাজ নামে সংগঠনের সমর্থন নিয়ে নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু , জগ প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউর রহমান জিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে সাবিনা ইয়াছমিন। এ ছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪২ জন ও সংরক্ষিত তিনটি ওয়ার্ডে আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৯ নারী সদস্য।

No comments

-->