শিরোনামঃ

জলঢাকা পৌর নির্বাচনে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচারনা ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা

জলঢাকা পৌর নির্বাচনে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচারনা ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা

স্টাফ রিপোর্টারঃ আসন্ন জলঢাকা পৌর নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামিলীগের নতুন মুখ এবং বর্তমান ও সাবেক মেয়র প্রার্থীর সঙ্গে ভোট যুদ্ধে ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা। প্রতিক বরাদ্ধের দিন থেকেই প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠ চশিয়ে বেড়াচ্ছে। রকমারী মুখরোচঁক ছন্দময় গানের তালে তালে মাইক যোগে ব্যাপক প্রচারনা ছাড়াও ব্যানার, ফেষ্টুন, ইষ্টিক্যার,উঠান বৈঠক, ক্লাবে ক্লাবে পদধূলী, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান,খেলাধূলা,বিয়েবাড়ি সহ সামাজিক অনুষ্ঠান এবং লিফলেট বিতরনের মাধ্যমে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা অব্যহত রেখেছেন প্রার্থীরা। এবারের পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন ৬ জন। কাউন্সিলর পুরুষ পদে ৪২ জন ও মহিলা সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ১৯ জন। নির্বাচন অফিস সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে ২০০০ সালে রুপান্তরিত ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত জলঢাকা পৌর শহরটিতে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৩ হাজার ৬শত ৩৪ জন। 

এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ৯শত ২১ জন ও মহিলা ভোটার ১৬ হাজার ৭শত ১৩জন। এবারের পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ও কাউন্সিলর পদে নতুন মুখ হিসাবে নির্বাচন করছেন অনেক প্রার্থী। ফলে সাবেক ও নতুনদের জয়গানে মুখরিত হয়ে উঠেছে পাড়া,মহল্লাসহ পৌর শহরের চায়ের দোকানগুলো। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের উলুধ্বনীতে সরগরম হয়ে উঠেছে জলঢাকা পৌরশহর। নিজ নিজ পছন্দনীয় প্রার্থীর প্রতিকের ইষ্টিক্যার যানবাহনে লাগিয়ে শো-ডাউন সহ বাইকে মহরা দিয়ে দাফিয়ে বেড়াচ্ছেন সমর্থকরা। হাতে গোনা আর মাত্র করেকটি দিন বাকি নির্বাচনের। তাই নির্ঘুম রাত কাটিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থীরা। 

৩০শে জানুয়ারীর এ পৌর নির্বাচনে ক্ষমতাশীন আওয়ামিলীগের নৌকা প্রতিক নিয়ে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন নতুন মুখ উপজেলা আওয়ামিলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান, শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব মহোসীন আলী। অন্যদিকে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি'র ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন প্রয়াত পৌর মেয়র আনোয়ারুল হক কবির চৌধূরীর পুত্র বর্তমান মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধূরী কমেট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নারিকেল গাছ প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন সাবেক পৌর মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন নতুন মুখ শাহ্ মোঃ জিয়াউর রহমান ( জিয়া চৌধূরী ) তিনি জগ প্রতিক নিয়ে মেয়র পদে লড়ছেন ও জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন জাপানেত্রী আফরোজা পারভীন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মোবাইল প্রতিক নিয়ে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন সাবিনা আক্তার। ৬জন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করলেও মুলত ভোট যুদ্ধে লড়াই হবে ত্রিমুখী। 

 ত্রিমুখী এ লড়াইয়ে প্রার্থীরা একে অপরকে ছাড় দিতে নারাজ। বর্তমান ও সাবেক মেয়রের নির্বাচনী লড়াইয়ে দৃশ্যপট লক্ষনীয় এর মধ্যে ক্ষমতাশীন আওয়ামীলিগের নৌকা প্রতিক নিয়ে যে প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তারও রয়েছে আকাশচুম্বী জন সমর্থন। ফলে ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনায় লক্ষ করছেন ভোটারেরা। তবে জনসাধারনের দাবী জলঢাকা পৌরশহরটিকে যে প্রার্থী আমুল পরিবর্তন করতে পারবে তাকেই এবারের পৌর মেয়র নির্বাচিত করা হবে। পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শহরের চায়ের দোকান, বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও লোকমুখে নির্বাচনী বাতাস বইতে শুরু করেছে। কোন প্রার্থীকে মেয়র নির্বাচিত করলে জলঢাকার উন্নয়ন হবে এবং কোন প্রার্থীকে নির্বাচিত করলে উন্নয়ন বঞ্চিত হবে জলঢাকা তার দর কশাকশি হচ্ছে ভোটারদের মধ্যে। যেমনি চলছে উন্নয়নের দর কশাকশির কথা তেমনি কথা হচ্ছে ব্যক্তি হিসাবে কার কেমন গ্রহন যোগ্যতা। 

সেই সঙ্গে ভোটারেরা ভাবছেন বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত জলঢাকা পৌর শহরটির নানাবিধ সমস্যার কথা। সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ভোট গ্রহনের মাধ্যমে কে হচ্ছেন আগামী দিনের পৌরসভার কান্ডারী তা দেখার অধির আগ্রহে রয়েছে পৌরবাসী। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসার উজ্জল হোসেন প্রতিবেদককে বলেন, নির্বাচন গ্রহনের সকল প্রস্তূতি গ্রহন করা হয়েছে। আশা রাখি অবাধ, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন পরিবেশের মধ্যেই নির্বাচন শুসম্পুর্ন হবে।

No comments

-->