শিরোনামঃ

৩ বছরের বেশি এক স্কুলে থাকতে পারবেন না শিক্ষক ও কর্মচারীরা-প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

৩ বছরের বেশি এক স্কুলে থাকতে পারবেন না শিক্ষক ও কর্মচারীরা-প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বছরের পর বছর কিংবা সারাজীবন এক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এই ব্যবস্থার পরিবর্তন এনে শিক্ষকদের নির্ধারিত সময় পর পর বদলি বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। গত বছরই এই উদ্যোগ নিয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। বর্তমানে এটি কার্যকরের উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মসুরুল আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা শিগগিরই এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করবো। এর আগে এ লক্ষ্যে তিন বছরে ঊর্ধ্বে একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রয়েছেন এমন শিক্ষকদের তথ্য চাওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি অধিদফতরের আওতাধীন কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরও বদলির ব্যবস্থা নেবো। সম্প্রতি তিন বছরের ঊর্ধ্বে একই জায়গায় রয়েছেন মাঠ পর্যায়সহ অধিদফতরের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তথ্য চাওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শিক্ষকদের হয়রানিসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নেয়। এসব বন্ধ করতে বদলি করা হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের চাকরি বদলিযোগ্য করা হচ্ছে। তাদের ৩ বছর পর পর অথবা ৫ বছর পর পর এক স্কুল থেকে আরেক স্কুলে বদলি করা হবে। তবে শিক্ষকদের যাতে ভোগান্তি না হয় সে কারণে কাছাকাছি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বদলি করার ব্যবস্থা রাখা হবে। সরকারি চাকরিজীবীদের তিন বছর পর পর বদলি করার নিয়ম থাকলেও প্রাথমিক শিক্ষকদের বেলায় তা করা হয় না। এই প্রথম এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে শিক্ষকদের বদলির পাশাপাশি তিন বছরের ঊর্ধ্বে একই জায়গায় কর্মরত মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদেরও বদলির ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) বিভাগীয় উপপরিচালকদের কাছে এ তথ্য চেয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।

অধিদফতরের অফিস আদেশে বলা হয়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরসহ আওতাধীন দফতরগুলোয় একই কর্মস্থলে তিন বছরের বেশি সময় ধরে কর্মরত কর্মচারীদের তথ্য আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে নির্ধারিত ছকে পাঠাতে হবে।

নির্ধারিত ছক অনুযায়ী কর্মচারীর নাম ও পদবী, কর্মরত অফিসের নাম ও যোগদানের তারিখ, কর্মরত জেলা ও উপজেলার নাম, অনুমোদিত পদসংখ্যা এবং বিভাগীয় পর্যায়ের অফিসসহ আওতাধীন অফিসের কর্মরত কর্মচারীদের মোট সংখ্যা জানাতে হবে।

এছাড়া তিন বছরের ঊর্ধ্বে কর্মরতদের নিজ জেলা ও উপজেলা, বর্তমান পদে যোগদানের তারিখ, সরকারি চাকরিতে প্রথম যোগদানের তারিখ, সরকারি চাকরিতে প্রথম পদ, আগের দুইটি কর্মস্থলের নাম ও কর্মকালীন মেয়াদের তথ্য জানাতে হবে।

No comments

-->