শিরোনামঃ

মানবেতর জীবন যাপন করছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী মোজাম্মেল হক

 মানবেতর জীবন যাপন করছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী মোজাম্মেল হক । 


আবু সাইদ বাগমারা প্রতিনিধিঃ 

রাজশাহী জেলা বাগমারা উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের ঠাকুর পাড়া গ্রামে মানবেতর জীবন-যাপন  করছেন একজন প্রতিভাবান শারীরিক প্রতিবন্ধী মোজাম্মেল হক । 

ঐ প্রতিবন্ধী ব্যক্তির নাম মোঃ মোজাম্মেল হক তিনি  উপজেলার ঠাকুর পাড়া গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে ।সরেজমিনে তার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, মোজাম্মেল হক তার স্ত্রী সহ দুই ছেলে কে নিয়ে ছোট্ট একটি কুঁড়ে ঘরে চরম মানবেতর জীবনযাপন করছেন।তার বড় ছেলে মোহাম্মদ মিনহাজুল ইসলাম মারুফ তার বয়স দশ বছর তার ছোট ছেলে মোঃ মমিন বয়স দুই বছর। এমনকি সন্তানের লেখাপড়ার খরচ ও ঠিকমতো বহন করতে পারছে না।

মোজাম্মেল হক গণমাধ্যমের সামনে আসতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে জানান,

তিনি অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়েও ২০১২  সালে বিএ পাস করেন, কিন্তু এর আগে দুঃখজনক ভাবে ২০০০ সালে হঠাৎ তিনি এক মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হন এবং সেই থেকে তার হাত- পা অবশ  হতে থাকে। অনেক চেষ্টা করেও তিনি আর স্বাভাবিক জীবনে ফেরত আসতে পারেনি।

এই প্রতিবেদন সংগ্রহকালে তার প্রতিবেশী গ্রামের একজন সুহৃদয়বান ব্যক্তি ডেকোরেটর ব্যবসায়ী মোঃ সাহাবুর রহমান ভুক্তভোগীকে চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন।

সেই সাথে তিনি আরো বলেন, সমাজের বিত্তবান এবং সুহৃদয়বান ব্যক্তিরা যেন তার চিকিৎসার জন্য তার পাশে এসে দাঁড়ায়।

ভুক্তভোগী জানান,খুব কষ্টে মানবেতর জীবন যাপন করছি, কিছুদিন ধরে অসুস্থ থাকায় আমার ছোট্ট একটা কম্পিউটার ব্যবসার দোকানে এবং আমি আমার বাড়ির পাশেই একটি মক্তবে ছোট ছোট বাচ্চাদের কোরআন শিক্ষা দিয়ে থাকি সেখানেও ঠিকমত যেতে পারছিনা। তিনি কীভাবে দোকানে যাওয়া-আসা করেন এরকম প্রশ্নের জবাবে মজাম্মেল হক বলেন, হাবিবুর, শহিদুল সহ আমার প্রতিবেশীরা আমাকে প্রতিদিন সাইকেলে করে দোকানে পৌঁছে দেয়। আমার দোকান থেকে যা রোজগার হয় তা থেকে আমার সংসার ঠিকমত চলে না এবং সংসারের সদস্যদের ভরণপোষণ ঠিকমত চালাতে পারি না। তাছাড়া বেশ কিছুদিন যাবৎ আমার কম্পিউটার টি নষ্ট হয়ে পড়ে আছে, ঠিক করার মতো টাকা-পয়সাও আমার কাছে বর্তমানে নেই।

কান্নাভেজা কণ্ঠে মোজাম্মেল হক বলেন, আমি আমার দুঃখ কষ্টের কথা কাউকে বলতে পারিনা। তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে স্বাভাবিক জীবনযাপন এবং শারীরিক সুচিকিৎসার সুদৃষ্টির হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

পরিশেষে প্রতিবেদনে একটিই কথা ,জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন হচ্ছে সমাজের একজন সচেতন মানুষ হিসেবে আপনার আমার এই মুহূর্তে করনীয় কি?

No comments

-->