শিরোনামঃ

ডিমলায় "ক"শ্রেণীর হতদরিদ্র গৃহহীন মানুষের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় ঘর নির্মাণের কাজ শেষের পথে

 ডিমলায় "ক"শ্রেণীর হতদরিদ্র গৃহহীন মানুষের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় ঘর নির্মাণের কাজ শেষের পথে


নুরুজ্জামান সরকার, জেলা প্রতিনিধি (নীলফামারী):


“আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার: এই প্রতিপাদ্য বাস্তবায়নে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে দূর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে নীলফামারীর ডিমলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ১৮৫ জন ভূমিহীন ও গৃহহীনদের বসবাস করার জন্য সরকারি খাস জমিতে ঘর নির্মাণের কাজ শেষের পথে। 


ডিমলা উপজেলায় “ক” শ্রেণির হতদরিদ্র গৃহহীন মানুষের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় তৈরী হচ্ছে সুন্দর সাজানো স্বপ্নের নীড়। ২০ জানুয়ারী বুধবার ইউনিয়নগুলি পরিদর্শন করেন ইউএনও জয়শ্রী রানী রায়।


এ সময় উপস্থিত ছিলেন- প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা- মেজবাহুর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌস আলম সহ স্ব-স্ব ইউ.পি চেয়ারম্যানবৃন্দ। 


অফিস সূত্রে জানা যায় ডিমলায় ৩ কোটি ১৬ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা ব্যায়ে ডিমলা সদর ইউ.পিতে ৮০টি, খগা খড়িবাড়ীতে ৪০টি, খালিশা চাপানী ৩০টি, পশ্চিম ছাতনাই ১৫টি, টেপা খড়িবাড়ী-১০টি ও ঝুনাগাছ চাপানীতে ১০টি মোট ৭টি ইউ.পিতে ভূমি ও গৃহহীনদের ২ কক্ষ বিশিষ্ট পাকা বাড়ি ২ শতাংশ জমি দিয়ে ঘর তৈরী করে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি ঘরে নির্মাণে ব্যয় ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা। ঘরগুলোতে রান্নাঘর সংযুক্ত ল্যাট্রিনসহ অন্যান্য সুবিধা আছে। গৃহনির্মাণের কাজ তদারকি করছে উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় সাংসদ, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।


এব্যাপারে ইউএনও জয়শ্রী রানী রায় বলেন-মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী এ উপজেলায় ১৮৫টি পরিবারের জন্য গৃহনির্মাণ কাজ শেষের দিকে। আর অল্পকিছু দিনের মধ্যে এসব ঘরের কাজ সম্পূর্ণ করে গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে ।

No comments

-->