শিরোনামঃ

জলঢাকায় মীরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চায় হুকুম আলী খাঁন

জলঢাকায় মীরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চায় হুকুম আলী খাঁন

স্টাফ রিপোর্টারঃ চেয়ারম্যান হুকুম আলী খান। দলীয় নেতাকর্মীরাও তাকে দলীয় প্রতীক নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায়। গত ইউপি নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে বিপুল পরিমাণ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন সহকারী শিক্ষক ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হুকুম আলী খাঁন। বিভিন্ন সংস্থার জরিপে দেখা যায়, এবারেও তার জনপ্রিয়তা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।মীরগঞ্জ ইউনিয়নে তার মত যোগ্য লোক নেই বলে মনে করছেন ইউনিয়ন আ’লীগনেতাকর্মীরা। তাছাড়া গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে পরাজিত ৩নং প্রার্থীআ’লীগ নেতা মীর হামিদুল হক চানুও তাকে সমর্থন দিয়েছে বলে জানান, হুকুম আলী খাঁন। উপজেলার মীরগঞ্জ ইউনিয়নের পাঠানপাড়া এলাকার আলহাজ্ব কছির উদ্দিন খাঁন এর পুত্র হুকুম আলী খাঁন ১৯৮৬ সালে ডোমার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত অবস্থায় ছাত্রলীগে পদার্পন করেন। এরপর ১৯৯৩ সালে জলঢাকা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ

সম্পাদক হিসেবে নির্বাচন করে পরাজিত হন। ১৯৯৪ সালে জলঢাকা উপজেলা যুবলীগে যোগদান করেন।এরপর ২০১৪ সাল থেকে অদ্যাবধি উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে আছেন। তিনি বিগত জোট সরকারের আমলে অনেক হামলা-মামলার শিকার হয়েছেন। তিনি একজন পরীক্ষিত নেতা বলে জানা গেছে। একারণে তিনি ওই ইউনিয়নের একজন সফল চেয়ারম্যান হিসেবে সুনামের সহিত কাজ করে যাচ্ছেন।

ইউনিয়ন যুবলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আনোয়ার হোসেন জানান, গত ২০১৬ সালের নির্বাচনে হুকুম আলী খাঁনকে নৌকা প্রতীক দেয়ার জন্য আমরা ৬১ সদস্যের মধ্যে ৪১জন সদস্য সম্মতি জ্ঞাপন করেছি কতৃপক্ষের নিকট। তারপরেও কোন অদৃশ্য কারণে তিনি নৌকার মনোনয়ন পাননি তা আজও অজানা। আশা করি এবার তিনি মীরগঞ্জ ইউনিয়নের নৌকার মাঝি হতে পারবেন।

চেয়ারম্যান হুকুম আলী খাঁন জানান, ২০১৬ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দের যাচাই বাছাইয়ে আমি মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছি। গতবার আমি নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় নির্বাচন করতে চাইনি। কিন্তু জনগণই আমাকে বাধ্য করেছে নির্বাচন করতে। তার প্রতিদানও পেয়েছি। এবার আশা করি আমার দলীয় নেতারা আমাকে নৌকা প্রতীক দিবে এবং মীরগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে একনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাব।

No comments

-->