শিরোনামঃ

আত্রাইয়ে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, খনন বন্ধে অভিযোগ' প্রশাসন নিরব

আত্রাইয়ে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, খনন বন্ধে অভিযোগ' প্রশাসন নিরব

আতাউর শাহ্, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর আত্রাই উপজেলার শাহাগোলা ইউনিয়নের কয়সা মৌজায় হাতিয়াপাড়া গ্রামের মাঠে ৬ বিঘা ফসলি জমি লিজ নিয়ে হাসেন আলী নামে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি ফসলি জমিতে পুকুর খনন করছে। এতে মাঠের মধ্যে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ হয়ে যাবে। পুকুর খনন বন্ধ না হলে গ্রামে দশ/বারোটি পরিবার মাঠ থেকে ধানসহ সবজি আনতে পারবেন না। দ্রুত ওই পুকুর খনন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

ওই পুকুর খনন বন্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেও খনন বন্ধ করা হয়নি বলে অভিযোগ করেন হাতিয়াপাড়া গ্রামের অভিযোগকারি কৃষক জেকের আলী। প্রশাসনের এমন নিরব ভূমিকা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

অভিযোগকারীর ছেলে সেলিম হোসেন বলেন, কয়সা মৌজায় মুনি ঘোষের প্রায় ৬ বিঘা ফসলি জমি লিজ নিয়ে হাসেন আলী নামে এক ব্যক্তি সেখানে পুকুর খনন করছেন। পুকুর খননের ফলে মাঠের এক মাত্র রাস্তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে পুকুর খনন বন্ধ করার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি তারপরেও পুকুর খনন চলছে। অভিযোগ দিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। 

তিনি বলেন, এর আগে আমার গভীর-অগভীর নলকূপের আওয়াতায় প্রায় ২৫-৩০ বিঘা ফসলি জমিতে পুকুর খনন করে ফসলি জমি খেঁকোরা। তখন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ডিসি বরাবর লিখিত ভাবে অভিযোগ জানালেও কোন কাজ হয়নি। প্রশাসনের এমন নিরব ভূমিকায় দিন দিন কমে যাচ্ছে ফসলি জমি ও নষ্ট হচ্ছে মাঠে যাত্রাযাত্রের একমাত্র রাস্তা।

সেলিম আরো বলেন, ফসলি জমিতে পুকুর খনন বন্ধের জন্য প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দেওয়ার পর থেকে অগভীর নলকূপের মটরের তার নষ্ট করেছে এবং পাহারদারকে হাত-পা বেঁধে কাদা-মাটির মধ্যে ফেলে রেখে যায় দৃর্বৃত্তরা।

ফসলি জমি লিজ নিয়ে পুকুর খননকারী হাসেন আলী বলেন, তিনি কোন জমি খনন করছেন না। জমির মালিক মুনি ঘোষ জানান, নিচু জমি হওয়ায় দশ বছর ধরে ধানসহ কোন ফসল পাই না। হাসেন আলীর মাটি প্রয়োজন হওয়ায় কিছু মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছেন মাত্র।

আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানাউল ইসলাম জানান, এ ধরনের ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ায় স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তাদের তদন্তেসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে।

No comments

-->