নতুন প্রকাশিতঃ

পোরশায় সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর শরিষা চাষ বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

পোরশায় সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর শরিষা চাষ বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা 

পোরশা(নওগাঁ)প্রতিনিধি: চলতি রবি মৌসুমে নওগাঁর পোরশা উপজেলায় ৩ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে শরিষা চাষ করা হয়েছে। শরিষার গাছ ও আবহাওয়া ভাল থাকলে বম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। এবারে শরিষার ভাল ফলনের সম্ভাবনা দেখা দেওয়ায় উপজেলার কৃষকরা ভাল দামের আসায় বুক বাঁধছেন। তারা স্থানীয়ভাবে ব্যাপকভাবে বারী-১৪, বারী-১৫, টরী-৭, বীনা-৪ ও বীনা-১৭ জাতের ৩ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে শরিষার চাষ করেছেন। তবে ফলন ভাল হওয়ার কারনে কৃষকগণ বারী-১৪ বেশী লাগিয়েছেন বলে জানাগেছে। বারী-১৪ শরিষা প্রতি বিঘা ৫-৭ মন ও টরী, বীনা জাতীয় শরিষা ৪-৫ হারে ফলন হতে পারে বলে কৃষকরা মনে করছেন। তবে দাম নিয়ে তারা চিন্তিত। শরিষার বর্তমান বাজার দর ২ হাজার ৪০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকা মণ হলেও নতুন শরিষা ওঠার সময় এর দাম কিছুটা কমে ১ হাজার ৬০০ থেকে ২ হাজার টাকা মণ হতে পারে বলে অনেকেই মনে করছেন। কৃষকগণ শরিষার ক্ষেত দেখে খুশি হলেও দাম নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন। তবে বর্তমান বাজার দর থাকলে তাদের কোন সমস্যা হবেনা বলে জানান তারা। তবে কোন কারনে দাম কম হলে শরিষা চাষ করতে যে খরচ হয়েছে তা মিটিয়ে নিজের কাছে অবশিষ্ট কিছুই থাকবে না বলে মনে করছেন তারা। নিতপুর কপালীর মোড়ের শরিষাচাষী ফজলুল হক, বালা শহীদের আজাদ মন্ডল ও জালুয়া গ্রামের আব্দুছ ছালাম জানান, তাদের লাগানো শরিষার ক্ষেত খুব ভাল হয়েছে। তারা আসা করছেন ফলনও ভাল হবে। কিন্তু দাম ভাল হবে কিনা চিন্তা করছেন। তবে ভাল ফলনের পাশাপাশি দাম ভাল পেলে অনেকেই শরিষা চাষের দিকে ঝুঁকবে বলেও তারা মনে করছেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মাহফুজ আলম জানান, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৩ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে শরিষা চাষ হয়েছে। উৎপাদন লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৫০০ মেট্রিকটন। আবহাওয়া ভাল থাকার কারনে শরিষা ক্ষেত খুব ভাল দেখা যাচ্ছে ফলে লক্ষমাত্রা অর্জন সম্ভব হবে বলেও তিনি জানান। তিনি আরও জানান, শরিষা চাষের প্রতি কৃষকদের উৎসাহিত করার জন্য তারা নানান দিক নিয়ে তাদের প্রশিক্ষন ও পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। কৃষকেরা ভবিষ্যতে শরিষা চাষের প্রতি আগ্রহ দেখাবেন বলে তিনি আশা করছেন।

No comments

-->