নতুন প্রকাশিতঃ

পাবনায় সুগার মিল বন্ধের প্রতিবাদে আগুন জ্বেলে বিক্ষোভঃ

 পাবনায় সুগার মিল বন্ধের প্রতিবাদে আগুন জ্বেলে বিক্ষোভঃ



মুনছুর আহমেদ সুমন, পাবনা জেলা প্রতিনিধি:


পাবনা ঈশ্বরদী উপজেলার একমাত্র ভারী শিল্প প্রতিষ্ঠান পাবনা সুগার মিলস্ বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিক কর্মচারী ও আখচাষীরা। গত মঙ্গলবার চিনিকল বন্ধ ঘোষণার কথা শুনে বুধবার (০২ ডিসেম্বর) থেকে চিনিকল গেটে অবস্থান নিয়েছে শ্রমিক কর্মচারী ও জেলার আখচাষীরা।


বৃহস্পতিবার (০৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত পাবনা সুগার মিলের প্রধান ফটকের সামনের বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়। এসময় বিক্ষোভকারীরা পাবনা ঈশ্বরদী মহাসড়ক কিছু সময়ের জন্য যানবহন চলাচলা বন্ধ করে দিয়ে চিনিকল গেটের সামনে আগুন জ্বালিয়ে দেয়। এসময় আন্দোলনকারীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে মহাসড়ক প্রর্দক্ষিন করে চিনিকল গেটে পথসভার অয়োজন করে।


এসময় বক্তব্যে রাখেন, পাবনা সুগার মিলস ওয়াকার্স ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি আরিফুর রহমান আরিফ, সাধারন সম্পাদক ইব্রাহীম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল আলম বাবু, শ্রমিক নেতা রাকিবুল ইসলাম, রমজান আলী, কামাল হোসেন প্রমুখ।


এসময় বক্তারা বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাবনা চিনিকল বন্ধের সরকারি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবী জানান। একই সাথে ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে পাবনা চিনিকল বন্ধ ঘোষনার তিব্র নিন্দা জানান।


শ্রমিকরা আরো বলেন, বিকল্প ব্যবস্থা না করে হাজার হাজার শ্রমিক কর্মচারীদের রুটি রুজির আহারের পথ বন্ধ করে দেয়া এটা কোন সঠিক সিদ্ধান্ত হতে পারে না। এটা আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত সরকারকে ভুল বুঝিয়ে বিদেশী চিনি বাজার জাত করার একটি কৌশল। এই আত্মঘাতি সিন্ধান্ত প্রত্যাহারের জন্য সরকারসহ বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের প্রতি আহবান জানান তারা।


আখ চাষীরা বলেন, আখ মাড়াই মৌশুম শুরুর আগ মূহুর্তে এই ধরনরে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য সরকার প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্ঠি কামনা করেন শ্রমিক কর্মচারীরা। চিনিকল বন্ধের এই আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা হলে মহাসড়ক ও রেলপথ অবরোধের হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন তারা। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ধারাবাহিক আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষনা দেন চিনিকল শ্রমিক নেতারা।

No comments

-->