নতুন প্রকাশিতঃ

শেরপুরে হাট বসে সড়কের উপর।

 শেরপুরে হাট বসে সড়কের উপর।

 মিজানুর রহমান মিলন, বগুড়া জেলা প্রতিনিধিঃ বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী বিশালপুর ইউনিয়নে অবস্থিত রানীরহাটে হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে হাট বসতে দেখা যাচ্ছে বছরের পর বছর। রানীরহাট শুধু বগুড়ার শেরপুর নয় , পার্শ্ববর্তী সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ ও রায়গঞ্জ উপজেলা এবং নাটোরের সিংড়া উপজেলার মানুষের জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ হাট।রানীরহাটে অসংখ্য পথচারী , সিএনজি, অটোরিকশা, মটরসাইকেল আরোহী, রানীরহাট টু নাটোর বাসের যাত্রী , এবং ট্রাক সহ বিভিন্ন গাড়ীর চালকেরা যাতায়াত করে।রানীরহাটে সড়কের উপর হাট বসার কারনে ছোট খাটো দুর্ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়তই। এছাড়াও সড়কের উপরে হাট বসার কারনে এখানে জ্যাম লেগেই থাকে সবসময়। এতে করে সাধারণ মানুষ সহ বিভিন্ন চাকরিজীবি সঠিক সময়ে গন্তব্যে স্হলে পৌঁছাতে পারছে না। বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে।এত কিছু ঘটার পরেও রানীরহাটে সড়কের উপর হাট বসছে বছরের পর বছর।এতে করে সড়কে বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের যাত্রী এবং চালকের অনেক দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়। এসব ব‌্যাপারে প্রশাসনের নজর আসছে না। উপজেলার রানীরহাট স্টান্ডে হাট বসে প্রতি সোমবার ও বৃহস্পতিবার।গত বৃহস্পতিবার সরেজমিনে রানীরহাট ঘুরে দেখা যায়,সড়ক দখল করে বসছে হাট,ধান হাট বসে পুরোটাই সড়কের উপর। এতে করে সড়কে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ছে। দেখা দিচ্ছে তীব্র যানজট। উপজেলার রানীরহাট বন্দরে অবস্থিত নোবেল পুরস্কার বিজয়ী প্রতিষ্ঠান গ্ৰামীন ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার ,শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ জরিফুল ইসলাম ও রানীরহাট এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক ,ব্যবসায়ী , ডা: মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ধানের উপর নির্ভরশীল অর্থনৈতিক এলাকা রানীরহাট। তিনটি জেলার চারটি উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়াতে রানীরহাট স্হান্ডে এমনিতেই লোক সমাগম বেশি হয়।সড়কের উপর ধান হাট বসার কারনে এখানে আরও বেশি যানযটের সৃষ্টি হচ্ছে। দুর্ঘটনা রোধে রানীরহাট থেকে ধান হাট সড়ক থেকে দুরে অন্য যেকোনো জায়গায় বসানোর জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন তারা।এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,হাট থেকে সরকার রাজস্ব খাতে আয় করছে ,হাট এবং সড়ক উভয়ই সরকারের।সড়কে হাট না বসাতে হাইকোর্ট থেকে নির্দেশনা রয়েছে। রানীরহাট আগে ছোট ছিলো এখন অনেক বড় হয়ে গেছে। জায়গা সংকীর্ণতার কারণে সড়কের দিকে হাট বসে ।তবে এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের নিকট কেউ কোনো অভিযোগ করেছে বলে তার জানা নেই বলে জানিয়েছেন তিনি। সমস্যা হলে  ইউএনও বরাবর জানাতে এবং এ ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি রয়েছে বলে জানান তিনি।

No comments

-->