নতুন প্রকাশিতঃ

ঝিনাইদহের বিষয়খালী বাজারে সাংবাদিকের পরিবারের বসতবাড়িতে যাওয়ার পথ বন্ধ করেছে দুর্বৃত্তরা।

 ঝিনাইদহের বিষয়খালী বাজারে সাংবাদিকের পরিবারের বসতবাড়িতে যাওয়ার পথ বন্ধ করেছে দুর্বৃত্তরা।

মোঃ আনোয়ার হোসেন,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের বিষয় খালী বাজারে মহাসড়কের পাশে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই মার্কেটসহ ভবন নির্মাণের অভিযোগ। বিষয় খালী বাজারের পাশে কানুহরপুর গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মিজানুর রহমান, হাসানুর রহমান, হরিপুর স্কুলের এমপিও কর্তনকৃত শিক্ষক ও তার ভাই এমদাদ মোল্লা, পিতাঃ মৃত আমিন উদ্দিন  মোল্লা। তিন ভাই মিলে বিষয় খালী বাজারে মহাসড়ক এর পাশে প্রশাসনের বিনা অনুমতিতে তাদের নিজ জমিতে মার্কেটসহ ভবন নির্মাণ করছিল।কিন্তু তাদের জমির পিছনের জমিতে যাওয়ার রাস্তা না রাখায় ভুক্তভোগী জাহিদুল ইসলাম ও সাংবাদিক ইমদাদুল হক  ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এর নিকট গত ২৫/১২/২০২০ তারিখ তাহার বাড়িতে যাওয়ার পথ পাওয়ার জন্য অভিযোগ করেন। 

অভিযোগের কারণে ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এই কাজ বন্ধ করার জন্য নলডাংগা পুলিশ ফাড়ির এএসআই মুনছুর আলমকে পাঠানোর পরও ভবনের কাজ চালু রাখায় গত ২৬/১২/২০২০ তারিখে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে চেয়ারম্যান গ্রাম পুলিশ পাঠালে ভবন নির্মাণ কারীরা গ্রাম পুলিশ দের তাড়িয়ে দেয়। তারপর  নলডাঙ্গা ফাড়ির ইনচার্জ মনিরুল ইসলাম কে পাঠিয়ে  কাজ বন্ধ করেন এবং উভয় পক্ষকে থানায়  ডাকেন।ঝিনাইদহ সদর থানার তদন্ত ওসি এমদাদ সবাইকে নিয়ে গোল ঘরে বৈঠক হয়।অনেক আলোচনার পর ওসি মিজানুর রহমান আসলেন এবং  বললেন সরকারি  আইন অনুযায়ী  তিন তিন ছয় ফুট পথ দিতে হবে।তারপর মহারাজ পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব খুরশিদ আলম কে ফোন করে বলে ২৮/১২/২০২০ তারিখ সোমবার জমিমাপের আমিন সহ সবাইকে নিয়ে পথ বের করবেন।

আজ উক্ত বিষয় টি চেয়ারম্যান জনাব খুরশিদ আলম সবাইকে নিয়ে বসেছেন এবং ইউনিয়ন পরিষদ পর্যায়ে জমিতে বাড়ি করার পরিপত্র সবাইকে দেখালেন এবং  বললেন সরকারি আইন থাকলেও  কেউ মানে না তবে প্রশাসনের নিকট অভিযোগ দিলে প্রশাসনের উদ্যোগে অনুমতি ছাড়া কাজ বন্ধ থাকে।এখন উপজেলা প্রশাসনের নিকট আপনারা যান সেখানে সরকারি  নিয়মে সমাধান হবে।

এ ব্যাপারে ভবন নির্মাতা মিজানুর রহমান বলেন আমাকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ বিষয়ে জানতে চেয়েছেন।তিনি আরো বলেন সরকারি আইন আমি জানতাম না।আজ জানলাম আমি আপাতত বাড়ি করবো না।।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মিজানুর রহমান এই সিদ্ধান্তের পর রাতের অন্ধকারে গায়ের জোরে ঝিনাইদহের সকল প্রশাসনকে অবজ্ঞা করে সাংবাদিক ইমদাদুল হক ও তার ভাই জাহিদুল ইসলাম এর বসতবাড়িতে যাওয়ার পথ বেড়া দিয়ে বন্ধ করে রেখেছে।

No comments

-->