নতুন প্রকাশিতঃ

পঞ্চগড়ে গর্ভবতি মায়েরপেটে লাথি মেরে গর্ভপাতের অভিযোগ।

 পঞ্চগড়ে গর্ভবতি মায়েরপেটে লাথি মেরে গর্ভপাতের অভিযোগ।



মোঃসোহেল রানা,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃপঞ্চগড় সদর উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিবেশীর স্ত্রীর পেটে লাথি মেরে গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।


আজ  রবিবার ঘটনাটি সদর উপজেলার ১নং অমর খানা ইউনিয়নের ঠুটাপাখুরী এলাকায় ঘটে।ঘটনার সময় আয়শা (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্রী মুঠোফোনে মারধরের ছবি ধারণ করে। 


ঘটনার পর (৬ নভেম্বর শুক্রবার) নাজমা বেগমের (২৬)স্বামী আমিনার রহমান বাদী হয়ে সদর থানায় সয়বুর রহমান (৫৫) সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।যাহার নং-৫। 


এজাহার ও সরেজমিন সূত্রমতে জানা গেছে, জমি নিয়ে সয়বুর ও আমিনারের পরিবারে মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। তারই প্রেক্ষিপিতে শুক্রবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে নাজমা বেগম বাড়ীর পাশে টিউবওয়েলের ময়লা পানির ড্রেন পরিস্কার করতে গেলে, সয়বুরসহ তার পরিবারের লোকজন দলবদ্ধভাবে আসে । কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নাজমা বেগমের হাতে কৃষি কাজে ব্যবহৃত বেধা সয়বুর ছিনিয়ে নিয়ে প্রথমে মাথায় পরে শরীরে বেধরক মারে ।পরে ওই মহিলার তলপেটে বার বার লাথি মারলে মহিলা অচেতন হয়ে ব্লেডিং শুরু হয়। পরিবারের সদস্যরা উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথেই ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বার গর্ভপাত ঘটে।পরে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা শেষে রোববার ছারপত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেন।


পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক ডা.সিরাজউ-দ্দৌলা পলিন জানান, এটাতো পুলিশ কেস, পুলিশের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত জানাযায় না।তবে অবশ্যই রেজিষ্টারে ইনজুরি লেখা থাকবে।


পঞ্চগড় সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক ( তদন্ত )মো. জামাল হোসেন জানান , লাথি মেরে গর্ভপাতের ঘটনায় মামলা হয়েছে ।আমরা আসামীকে আটকের জন্য অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি।

No comments

-->