নতুন প্রকাশিতঃ

শাজাহানপুরে আওয়ামীলীগ কর্মীকে ছুরিকাঘাতঃআরেক নেতাকে মারতে এসে অস্ত্র ফেলে পলায়ন

 শাজাহানপুরে আওয়ামীলীগ কর্মীকে ছুরিকাঘাতঃআরেক নেতাকে মারতে এসে অস্ত্র ফেলে পলায়ন

শাজাহানপুর(বগুড়া)প্রতিনিধিঃ বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলায় গোহাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী ব্যবসায়ী আব্দুল করিমকে ছুরিকাঘাত করেছে দূর্বৃত্বরা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সারে ৬টার দিকে জামাদার পুকুর স্ট্যান্ডে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে এই ঘটনা ঘটে। হামলা কারীরা খড়না ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী। এই ঘটনায় গত শুক্রবার রাতে থানায় অভিযোগ হয়েছে।

অপরদিকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় গোহাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য দিনেশ চন্দ্রের উপরে হামলা করতে গোহাইল হিন্দুপাড়া গ্রামে যায় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। এসময় এলাকার কেউ ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে পুলিশি সহযোগীতা চায়। পুলিশ আসার আগেই এলাকাবাসি জমায়েত হলে দেশীয় ধারালো অস্ত্র ফেলে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে পুলিশ সেগুলেঅ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। 

করিম জানান, তিনি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে ড্রেনের উপরে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এসমন সময় ৩টি মোটর সাইকেলে প্রায় ৯জন যুবক এসে তাকে মারপিট করে এবং ছুরিকাঘাত করে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেন। অনেক লোকজন দেখতে আসায় করোনা ভাইরাস এবং হামলাকারীদের ভয়ে তিনি চিকিৎসকদের নিষেধ অমান্য করে নিজ বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হামলাকারীদের একজন খড়না ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া গ্রামের যুবক। বছর খানেক আগে ককটেল বানানোর সময় তার এক হাত তালু সহ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা তার কাছে ১লক্ষ টাকা চাঁদার দাবীতে হামলা করেছে বলে করিম জানিয়েছেন। 

দিনেশ জানান, তার ভাতিজার সাথে শুক্রবার স্থানীয় কতিপয় যুবকের কথা কাটাকাটি হয়। এসময় তিনি সেখানে গিয়ে কথা বলে সমাধানের চেস্টা করেন। এর জের ধরে বিকেল সারে ৪টার দিকে সন্ত্রাসীরা দল বেঁধে হিন্দু পাড়া গ্রামে তার বাড়িতে দেশীয় ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাকে মারতে যায়। এরপর কেউ ৯৯৯নাম্বারে ফোন করে পুলিশি সহযোগীতা চান। এরমধ্যে বর্তমান ইউপি সহ এলাকার লোকজন জমায়েত হলে অস্ত্র গুলো ফেলে চলে যায়। পুলিশ এসে সেগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

No comments

-->