নতুন প্রকাশিতঃ

পাবনায় পুলিশের হাতে দুই কেজি ওজন এর কষ্টিপাথর তুলে দিলেন স্বপ্নাঃ

           পাবনায় পুলিশের হাতে দুই কেজি ওজন এর কষ্টিপাথর তুলে দিলেন স্বপ্নাঃ



 মুনছুর আহমেদ সুমন, পাবনা জেলা প্রতিনিধি:

 স্বপ্না খাতুনের বাড়ি পাবনার চাটমোহরের বাহাদুরপুর গ্রামে, বাবার নাম গোলজার শেখ। শনিবার (৩ অক্টোবর) প্রায় দুই কেজি ওজনের পাথরটি পুলিশের হাতে তুলে দেন তিনি। স্বপ্না খাতুন বলেন, প্রতিবেশি বেবী খাতুনের কাছে থেকে পাথরটি চেয়ে নেন। তিনি পাথরটি শিল নোড়া হিসেবে ব্যবহার করেতন। শিল নোড়াটি সাধারণ পাথরের না মনে হয়েছিল। বেবী খাতুনকে এক হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পাথরটি নেন। পরে প্রথমে রোজি কুটির শিল্প ও পরে রায় জুয়েলার্সের মালিককে দেখান। পাথরের ওপর সোনা ঘষে এবং অ্যাসিড-ছাই দিয়ে পরীক্ষা করেন তারা। এরপর দুজনই জানান পাথরটি কষ্টিপাথর। বেবী খাতুন গ্রামটির বাসিন্দা সাজু হোসেনের স্ত্রী। সোনার দোকান দুটি চাটমোহর সদরের সোনাপট্টি এলাকায়। রায় জুয়েলার্সের পরিচালক রনি রায় বলছেন, ওই নারী আমার দোকানে এসেছিলেন। সোনা শনাক্তকরণে ব্যবহৃত কষ্টিপাথরে সোনা ঘোষলে যে দাগ হয়, পাথরটিতেও সাদৃশ্যপূর্ণ দাগ পেয়েছিলাম। তাই মনে হয়েছে পাথরটি কষ্টিপাথর হতে পারে। পাথরটির ওজন ১ কেজি ৯০০ গ্রামের মতো। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাটমোহর সার্কেল এর এএসপি সজিব শাহরীন বলেন, স্বপ্না খাতুন নামের এক নারী এসে একটি কালো পাথর দিয়েছেন, পাথরটি থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তবে সেটা কষ্টিপাথর কি না, তা পরীক্ষা করে নিশ্চিত হওয়া যাবে৷

No comments

-->