নতুন প্রকাশিতঃ

সুন্দরগঞ্জে ধসে গেছে তিস্তা বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ

 সুন্দরগঞ্জে ধসে গেছে তিস্তা বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ।



জিহাদ ইসলাম, সুন্দরগঞ্জ গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

অবিরাম বর্ষণের তোড়ে লালচামার-সুন্দরগঞ্জ তিস্তা বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি বেলকা বাজার সংলগ্ন স্থানে ধসে গেছে। যে কোন মহুর্তে বাঁধটি ভেঙে গিয়ে তিস্তার পানি ঢুকে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হওয়ার সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। এখন পর্যন্ত ধসে যাওয়া স্থানটি মেরামতে কোন ব্যবস্থা নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এদিকে বাঁধটি দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার পূবাঞ্চলের যোগাযোগের এক মাত্র মাধ্যম এই বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি। প্রতিদিন ছোটখাট হাজারও যানবাহন বাঁধটি দিয়ে চলাচল করে।


বাঁধটির ডানতীর কামারজানী হতে বামতীর ঘগোয়া পর্যন্ত দীর্ঘ ৩৫ কিলোমিটারের মধ্যে সম্প্রতিকালের বন্যায় অর্ধশতাধিক স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে গত কয়েকদিনের অবিরাম বর্ষনে ওইসব বড় গর্ত বসে গিয়ে বাঁধটি ভেঙে যাওয়ার সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। বেলকা গ্রামের স্কুল শিক্ষক সাইফুল ইসলাম জানান, বৃষ্টির তোড়ে বেলকা বাজার সংলগ্নস্থানে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি ধসে গেছে। সে কারণে যানবাহন চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে পড়েছে। ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে যাত্রী সাধারণ। তিনি বলেন তিস্তা পিসি গার্ডার সেতুর সংযোগ সড়ক হিসেবে গত বছর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মাটি ভরাট করলেও তা তদারকি না করায় বাঁধটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।


হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাফিউল ইসলাম জিমি জানান, বাঁধটির মধ্যে সৃষ্টগর্ত মেরামত করা একান্ত প্রয়োজন। তা না হলে বাঁতধটি ভেঙে গেলে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হবে। তিনি বলেন এক বছর অতিবাহিত হলেও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাঘাট এখন সংস্কার করা হয়নি। উপজেলা নিবার্হী অফিসার ভারপ্রাপ্ত ও সহকারি কমিশনার (ভুমি) শাকিল আহমেদ জানান, বিষয়টি তিনি জানেন। সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষকে বাঁধটি সংস্কার ও মেরামতের জন্য বলা হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান জানান বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটির ওই অংশ তিস্তা পিসি গার্ডার সেতুর সংযোগ সড়ক হিসেবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাজ করছে। আশা করছি অতিদ্রুত ক্ষতিগ্রস্থ স্থান মেরামত করা হবে।

No comments

-->