নতুন প্রকাশিতঃ

বাঘায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

 বাঘায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী



রাজশাহী প্রতিনিধি


কোন অপরাধীকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়া হবে না। যে দলের হোক না কেন, অপরাধ করলে তার শাস্তি হবে। দেশে যে হারে ধর্ষণ শুরু হয়েছে, এই ধর্ষণের শাস্তি সর্বোচ্চ মৃত্যুদন্ড আইন করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেনর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (১০ অক্টোবর) বাঘা উপজেলা অডিটোরিয়ামে বেলা ১১টায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি। অনুষ্ঠানের শুরুতে বর্তমান সরকারের উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।


পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এক সাথে বাঘা উপজেলার ৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের মধ্যে চকরাজাপুর ইউনিয়নের বিদ্যুৎ সংযোগের, শুভ উদ্বোধন, গড়গড়ি ইউনিয়নের ভূমি অফিসের ভিত্তিপ্রস্তর, মুশিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নব নির্মিত ভবন শুভ উদ্বোধন, বাজুবাঘা ইউনিয়নের ভূমি অফিসের ভিত্তিপ্রস্তর, নির্মিতব্য বাঘা উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্র ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর, মনিগ্রাম বাজারের হাটশেট নির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর করেন।

স্থানীয় সরকারের উপজেলা প্রকৌশলী অফিসের আয়োজনে অনুষ্টানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিন রেজা।


বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু। অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী সামিউল হক, উপজেলা প্রকৌশলী রতন ফৌজদার, বাঘা উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম, আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলী, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম মন্টু, মুজিবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদেক কবির, সদস্য মাসুদ রানা তিলু, কামাল হোসেন, বাঘা পৌর আ.লীগের সভাপতি নেতা আবদুল কুদ্দস সরকার, সাধারন সম্পাদক মামুন হোসেন, বাঘা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, আড়ানি পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদুজ্জামান শাহীদ, সাধারন সম্পাদক আবদুল মতিন, বাঘা উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শফিউর রহমান শফি, ও উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন।


এছাড়া যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাবেকলীগ, সৈনিকলীগ, কৃষকলীগ, মহিলালীগ, যুব মহিলালীগের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।


এর আগে যুব মহিলা লীগের আয়োজনে ধর্ষণের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।


এ সময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধর্ষকের কোন জাত, কোন সামাজিক অবস্থা নেই, কোন দল, কোন ধর্ম নেই বলে ধর্ষনের বিরুদ্ধে একত্ততা ঘোষণা করে উপস্থিত নেতাকর্মীদের ধর্ষণের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার আহবান জানান তিনি।পরে করোনাকলীন সময়ে স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিধি মেনে সকলকেই মাস্ক পরার পরামর্শ দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।


পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, উপজেলার মধ্যে পাকুড়িয়া ও গড়গড়ি ইউনিয়নে ব্যাপকহারে ইন্টারনেটের অ্যাপসের মাধ্যমে ইমু পাটির আবির্ভাব হয়েছে।তারা মানুষকে জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ইতিমধ্যে আমাদের পুলিশ প্রসাশন তাদেও কিছু লোককে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছে। আগামীতে গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে তাদের সঠিকভাবে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেন। তারা যতই শক্তিশালী হোন না কেন তাদের বিরুদ্ধেও আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

No comments

-->