নতুন প্রকাশিতঃ

আলোয় আলোকিত প্রানের শহর ঠাকুরগাঁও

 আলোয় আলোকিত প্রানের শহর ঠাকুরগাঁও।


মোঃসোহেল রানা,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ অবশেষে ঠাকুরগাঁও শহরের অন্ধকার পরিবেশকে দূর করে করা হলো আলোকিত শহর। ইতিমধ্যে শহরের বাসষ্ট্যান্ড হতে সার্কিট হাউজ পর্যন্ত জ্বলে উঠেছে সড়কের ডিভাইডারে লাগানো স্ট্রিট লাইটগুলো।


গতকাল রোববার সারেজমিনে গেলে এমনি চিত্রটি চোখে পড়ে প্রত্যেকের।


সড়কের এসব বাতিগুলো সড়ক দুর্ঘটনা সহ সাধারণ জনগনের সুবিধার্থে ভালো ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন স্থানীয়রা জনগণ।


 শহরকে আলোকিত করায় স্থানীয়রা আনন্দিত হয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন  বাংলাদেশ সরকারকে । সেই সাথে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এমপি রমেশ চন্দ্র সেন কেও।


এই সময় শহরের বাসষ্ট্যান্ড এলাকা থেকে সার্কিট হাউজ পর্যন্ত সড়কের মাঝখানে যেসব সড়কবাতি নির্মাণ কারা হয়েছে সেগুলোতে দেয়া হয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ। রাস্তার উভয় পার্শে লাগানো ৩৫ফুট লম্বা জিআই পাইপে মাথায় জ্বলছে এলইডি লাইট।


 এরমধ্যেই ফুটে উঠেছে সেই সড়কটি। অপরদিকে দ্রত গতীতে কাজ এগিয়ে চলছে সড়কের ডিভাইডারের উপরে অবশিষ্ট থাকা স্ট্রিট লাইটগুলো জ্বালানোর কাজ।


জানা যায়, সড়ক ও জনপদ বিভাগের উদ্যোগে শহরের পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড হতে রোড পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার রাস্তায় নির্মিত হয়েছে স্ট্রিট লাইট বা সড়কবাতি স্থাপনের কাজ। মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে চলতি বছরের মে-জুন মাস থেকেই প্রায় ৪ কোটি ১৬ লক্ষ টাকা ব্যয় ধরে জেলা শহরের ৬ কিলোমিটার রাস্তার ডিভাইডারের মাঝখানে সড়কবাতি নির্মাণ কাজ শুরু হয়।  রাস্তার উভয় পার্শে লাগানো হয়েছে ৩৫ফুট লম্বা জিআই পাইপ।  এই ৬ কিলোমিটার রাস্তাায় ২৬০টা পাইপ রয়েছে।  যার দুই পাশেই রয়েছে লাইট।


শহরের বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় কথা হয় পথচারী ওয়াদুত হোসেনের সাথে। তিনি আনন্দিত হয়ে বলেন,একটা সময় শহরটি অন্ধকার ছিলো। আজ সড়কের মাঝে জ¦লছে লাইট। আলোকিত হয়ে উঠেছে শহরটি। আমি ধন্যবাদ জানাই আমাদের এমপি রমেশ চন্দ্র সেন কে যার মাধ্যমেই আমাদের এই শহর আজ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।


বলাকা সিনেমা হলের সামনে হাতে ফোন দিয়ে সড়কের জ¦লে ওঠা স্ট্রিট লাইটের ভিডিও করছেন পায়েল ইসলাম শুভ নামের এক পথচারী। ভিডিও করছেন কেন.? এমনি এক প্রশ্নের জবাবে আনন্দিত হয়ে তিনি বলে উঠেন,শহর আর আগের শহর নেই। দেখে যেন মনে হচ্ছে এই শহর আজ বিদেশ হয়ে গেছে। দেখতে কতোটা ভালো লাগছে তা বলে বুঝার মতো নয়। তাই ভিডিও করে রাখছি।


সার্কিট হাউজের সামনে কথা হয় পথচারী শাহদাত হোসেনের সাথে তিনি বলেন,এই সরকারের আমলে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। যার বাস্তব প্রমান আজকের ঠাকুরগাঁও। আমি ধন্যবাদ জানাই এই সরকারকে। সেই সাথে ধন্যবাদ জানাই আমাদের ঠাকুরগাঁও ১ আসনের এমপি রমেশ চন্দ্র সেনকে। যার কারনেই আজ আমাদের এই জেলা উন্নয়নের দিকে।


ঠাকুরগাঁও সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মনসুরুল আজিজ জানান, মুজিবর্ষ উপলক্ষে জেলাবাসীকে আলোকিত সড়ক উপহার দেয়ার প্রকল্প ছিলো এটি।  ইতিমধ্যে ডিভাইডারের উপরে জিআই পাইপে লাগানো স্ট্রিট লাইটগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ করা হয়েছে। যার ফলে বাসষ্ট্যান্ড থেকে সার্কিট হাউজ পর্যন্ত লাটগুলো জ্বলে  উঠেছে। 


বাকী লাইটগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার কাজ চলছে। আমরা আশা করি খুব দ্রুত সমস্ত লাইটগুলো জ্বলে উঠবে। যার ফলে আলোকিত হয়ে উঠবে আমাদের এই ঠাকুরগাঁও শহর।

No comments

-->