নতুন প্রকাশিতঃ

উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সময় আমি ওয়েটারের কাজ করেছি: শিক্ষা উপমন্ত্রী

 উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সময় আমি ওয়েটারের কাজ করেছি: শিক্ষা উপমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক:

একাদশ শ্রেণির নতুন ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস ৪ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে। রোববার সকালে ঢাকা কলেজের উদ্যোগে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত থেকে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাসের উদ্বোধন ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।


অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা আত্মসম্মানবোধ রোগে ভোগেন। তারা অনেক পেশাকেই সম্মানের চোখে দেখেন না। দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সময় আমি নিজে ওয়েটারের কাজ করেছি। এটি আমাদের দেশের অনেক মানুষের কাছে নিচু কাজ মনে হবে।’


তিনি আরও বলেন, ‘শিক্ষাটা যেন মানুষের আভিজাত্য তৈরি করতে না পারে, আমাদের সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের শিক্ষাকে সাধারণ মানুষের চাহিদা অনুযায়ী প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কোন কাজই ছোট না। একজন কৃষক শিক্ষার অভাবে কৃষিকাজ ঠিকভাবে করতে পারে না। কিন্তু একজন শিক্ষিত ব্যক্তি কৃষিকাজ করলে কৃষির ব্যাপক বিল্পব ঘটবে।


উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, সঙ্কট অনেক সময় আমাদের জন্য সম্ভাবনা নিয়ে আসে। করোনাভাইরাসও আমাদের জন্য সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে দিয়েছে। যেটা আমরা আজ  থেকে পাঁচ বছর পরে করতাম সেটির সাথে আমরা এখন থেকেই অভ্যস্ত হয়ে গেলাম। করোনা পরবর্তী সময়েও অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে।


তিনি আরও বলেন বলেন, আমারা ডেমোগগ্রাফিক ডিভিডেন্ট এর কথা বলি। সেটি বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদের ভবিষ্যতে অনলাইন কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত হতেই হতো। করোনা পরিস্থিতি আমাদের সেই সুযোগ এখনই করে দিয়েছে। করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়েও অনলাইনের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম অব্যহত থাকবে।


শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নানা প্রতিবন্ধকতা থাকার পড়েও অনলাইনে ক্লাস শুরু হচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য তা সফল হয়েছে। তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিজেকে গড়ে তুলতে শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানান তিনি। আগে আমাদের ধারণা ছিল শিক্ষকরা সব জ্ঞানের উৎস। কিন্তু আধুনিক প্রযুক্তির যুগে সব তথ্যই সবার হাতের কাছে। তাই আমরা শিক্ষকদের নিজেদের জ্ঞানের উৎস না ভেবে আদর্শ গাইড হিসেবে ভাবতে হবে। তারা আগামী প্রজন্মকে দক্ষ পথ প্রদর্শকের মতই এগিয়ে নেবেন।

No comments

-->