নতুন প্রকাশিতঃ

বিশ্ব মহামারী করোনার মধ্যেও শিক্ষা প্রসারের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে: এমপি রমেশ।

 বিশ্ব মহামারী করোনার মধ্যেও শিক্ষা প্রসারের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে: এমপি রমেশ।



মোঃসোহেল রানা,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেছেন, মহামারী করোনার জন্য দেশে একটি vসংকটময় সময় অতিক্রম করছে। তারপরও বর্তমান সরকার শিক্ষা ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। করোনার এই সংকটময় সময়ের মধ্যেও শিক্ষা প্রসারের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। আমরা চাই প্রত্যেকটি মানুষ সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে উঠুক।


সোমবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার হলরুমে আয়োজিত প্রাথমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর নবনির্মিত ভবন উদ্বোধনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


ভার্চ্যুয়াল মিটিংয়ের মাধ্যমে ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন সদর উপজেলার ২২ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১৮টি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেন। এসব ভবনগুলো নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৩৪ কোটি টাকা।


সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড। এ মেরুদণ্ডকে আরও মজবুত করার জন্য আ.লীগ সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। করোনার মধ্যে বন্ধ বিদ্যালয়গুলোতে ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে নিয়মিত ক্লাস হচ্ছে। এসব ক্লাস শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই করতে পারছে। শিক্ষার্থীদের স্বার্থে সরকার যে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।


শিক্ষা অর্জনের জন্য ঘরে বসে নিয়মিত ভার্চ্যয়াল পদ্ধতিতে লেখাপড়া করার আহ্বান জানিয়ে সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, করোনাকালে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার কথা সর্বোচ্চ ভাবছে সরকার। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থায় না আসা পর্যন্ত দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। তাই বলে এই নয় যে লেখাপড়া বন্ধ রাখবেন। নিয়মিত লেখাপড়া করুন এবং নিজেকে সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলুন।


ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিমের সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়াল সভায় বক্তব্য দেন, ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহা: সাদেক কুরাইশী, জেলা এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী শাহারুল আলম মন্ডল, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম স্বপন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাসহুরা বেগম সহ শিক্ষা বিভাগ ও প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

No comments

-->